সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২
MIMS 24
এই মাত্র খেলাধুলা প্রিয় লেখক ব্রেকিং মু: মাহবুবুর রহমান

হাফিজের অপরাজিত ‘৯৯’ও জেতাতে পারলো না পাকিস্তানকে

মু: মাহবুবুর রহমান, নিউজিল্যান্ড থেকে

অকল্যান্ডে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে হারের পর হ্যামিলটনে এসে দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে চেয়েছিল পাকিস্তান। সেটি করতে ক্যারিয়ার সেরা ৯৯ রানের ঝলমলে এক ইনিংসও খেলেছিলেন মোহাম্মদ হাফিজ। তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি, ৯ উইকেটে হেরেছে পাকিস্তান। আর এ ম্যাচ জিতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ২-০ তে সিরিজ জয় নিশ্চিত করলো নিউজিল্যান্ড।

দ্বিতীয় ম্যাচেও টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন পাকিস্তানের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক শাদাব খান। তবে আগের ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও পাকিস্তানের টপ অর্ডার ছিল ব্যর্থ। ৩৩ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপেই পড়ে যায় পাকিস্তান। এরপর চারে নামা মোহাম্মদ হাফিজ একাই দলকে টেনেছেন। ৫৭ বলে ১০ চার ও ৫ ছক্কায় অপরাজিত ৯৯ রানের ইনিংস খেলেন হাফিজ।  ৪০ বছর বয়েসী হাফিজ ছাড়া পাকিস্তানের কেউই ভালো করতে পারেননি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ানের, ২২ রান।

পাকিস্তানের ব্যাটিং ইনিংসের পুরোটাই যেন হাফিজময়। বয়স ৪০ বছর পেরিয়ে গেছে। এতো বয়সেও হাফিজ কেন জাতীয় দলে নিজের জায়গা আকঁড়ে ধরে আছেন তা নিয়ে সমালোচনা শোনা যায় কান পাতলেই। হাফিজও সুযোগমতো সেই সমালোচনার জবাব দিয়ে যাচ্ছিলেন, টুইটারসহ বিভিন্ন  গণমাধ্যমে। আর আসল জবাবটা দিলেন এদিন ব্যাট হাতে, করলেন অপরাজিত ৯৯ রান।

হাফিজের ৯৯ রানের সুবাদে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৬৩ রানের লড়াকু ইনিংস গড়ে পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচে অভিষিক্ত জ্যাকব ডাফির পেস তোপে পড়েছিল পাকিস্তান। আর দ্বিতীয় ম্যাচে সফরকারীদের সমস্যায় ফেলেন টিম সাউদি। ৪ ওভার বোলিং করে মাত্র ২১ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন সাউদি এবং এ কারণে ম্যাচসেরাও হয়েছেন তিনি।

পাকিস্তানের দেয়া ১৬৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৪ বল হাতে রেখে জয় পায় কিউইরা। এ ম্যাচেও দ্যূতি ছড়িয়েছেন টিম শেইফার্ট। মার্টিন গাপটিল ২১ রানে ফিরলেও, পাকিস্তান আটকাতে পারেনি এই ওপেনারকে। শেইফার্টের অপরাজিত ৮৪ রানে সহজ জয় পায় নিউজিল্যান্ড। সঙ্গে ৫৭ রানে অপরাজিত ছিলেন দলে ফেরা কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

দল হারলেও এই ম্যাচে ব্যাটিং দ্যুতি ছড়িয়েছেন পাকিস্তানের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাফিজ। অপরাজিত থেকেও মাত্র এক রানের জন্য সেঞ্চুরি মিস করেছেন। টি–টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৯৯ রানে অপরাজিত থাকার নিদর্শন খুব বেশি নেই। হাফিজের এদিনের কীর্তিসহ এমন ঘটনা ঘটেছে মাত্র তিনবার। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে ২০২০ সালের ডিসেম্বরেই দুবার ৯৯ রানে অপরাজিত থাকার ঘটনা ঘটল। এই তো কিছু দিন আগে ১লা ডিসেম্বর নিউল্যান্ডস, কেপটাউনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৯৯ রানে অপরাজিত ছিলেন ইংল্যান্ডের ডেভিড মালান। আরেকটি ঘটেছিলো ২০১২ সালে, ইংল্যান্ডের লুক রাইট ৯৯ রানে অপরাজিত ছিলেন আফগানিস্তানের বিপক্ষে, কলম্বোতে।

আর টি–টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৯৯ রানে আউট হবার ঘটনা মাত্র একটি। যেটি ঘটেছিলো ২০১২ সালে, ইংল্যান্ডের অ্যালেক্স হেলস ৯৯ রানে আউট হয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে, ট্রেন্টব্রিজে। টি–টোয়েন্টিতে এই মোট চারটি ৯৯ রানের রেকর্ডের মধ্যে আরেকটি তথ্য চমকে যাওয়ার মতোই। দলীয় ইনিংস শেষে ৯৯ রান করার চারটি ঘটনার তিনটিই ইংলিশ ক্রিকেটারদের দখলে। মোহাম্মদ হাফিজ (২০২০, হ্যামিলটন, প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড) শুধু বাইরের। বাকি তিন ব্রিটিশ হলেন ডেভিড মালান (২০২০, নিউল্যান্ডস, প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা), লুক রাইট (২০১২, কলম্বো, প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান) আর অ্যালেক্স হেলস (২০১২, ট্রেন্টব্রিজে, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ)।

Related posts

ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত

razzak

বায়ু দূষণে দিল্লিতে গড় আয়ু প্রায় ১০ বছর কমেছে: রিপোর্ট

razzak

বন্যা ও ভূমিধসে ইন্দোনেশিয়া ৫০ জনের মৃত্যু

Irani Biswash

Leave a Comment

Translate »