সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
MIMS 24
আন্তর্জাতিক এই মাত্র কোভিড ১৯ প্রিয় লেখক ব্রেকিং মু: মাহবুবুর রহমান স্বাস্থ্য

করোনাকালীন সময়ে বাংলাদেশ বিশ্বের ২০তম নিরাপদ দেশ

মু: মাহবুবুর রহমান

বিশ্বে করোনা মোকাবেলায় সফল দেশগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ। করোনাভাইরাস হানা দেয়ার পর মার্কিন এ প্রভাবশালী সাময়িকী প্রতিমাসে করোনা সহনশীলতায় শীর্ষ দেশগুলোর তালিকা প্রকাশ করে আসছে। সর্বশেষ ২১ ডিসেম্বর প্রকাশিত এ তালিকায় ২০তম স্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ।

শীতের শুরুতে বিশ্বজুড়ে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পেলেও যেসব দেশে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুহার এখনো সহনীয় পর্যায়ে আছে সেসব দেশই এবারের তালিকায় প্রথম দিকে স্থান পেয়েছে। বিশ্বের মোট ৫৩ দেশের সামগ্রিক করোনা পরিস্থিতি নিয়ে করা এই র‌্যাংকিং এ  দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে কেবল বাংলাদেশই এই তালিকায় শীর্ষ ২০ দেশের মধ্যে রয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার বাকি দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তান ২৯ ও ভারত ৩৯ তম অবস্থানে আছে।

ব্লুমবার্গ র‌্যাংকিংয়ে কোভিড -১৯ এর ক্ষেত্রে সামগ্রিক মৃত্যু হার এবং করোনা শনাক্তের হার ও টিকাপ্রাপ্তির মতো বিষয়গুলোকে মানদণ্ড হিসেবে ধরা হয়েছে। ১০টি মূল সূচকের মধ্যে স্থানীয় স্বাস্থ্যসেবার সক্ষমতা, অর্থনীতিতে ভাইরাসজনিত বিধিনিষেধের প্রভাব এবং চলাফেরার স্বাধীনতাও বিবেচনা করা হয়। বিশ্বের ৫৩ দেশের সামগ্রিক করোনা পরিস্থিতি নিয়ে এই র‌্যাংকিং করা হয়েছে।

করোনা মহামারির সূচকে আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যুহার নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ এগিয়ে থাকলেও টিকা প্রাপ্তির সম্ভাবনার সূচকে পিছিয়ে আছে। অন্যদিকে, জীবনযাত্রার মান নির্ণায়ক সূচকগুলোর মধ্যে জিডিপি আর যোগাযোগ ব্যবস্থার গতির দিক থেকে এগিয়ে থাকলেও বাংলাদেশ এখনো পিছিয়ে আছে জনজীবনে লকডাউনের প্রভাব আর স্বাস্থ্যসেবার মানের দিক থেকে। তাই তালিকায় ১০০ তে ৫৯ দশমিক ২ নম্বর পেয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ২০ তম।

ব্লুমবার্গের মূল্যায়নে করোনা মোকাবেলায় ৮৫ দশমিক ৬ স্কোর নিয়ে তালিকার শীর্ষে আছে বরাবরের মতো নিউজিল্যান্ড। শীর্ষ দশে থাকা বাকি দেশগুলো হলো তাইওয়ান, অস্ট্রেলিয়া, নরওয়ে, সিঙ্গাপুর, ফিনল্যান্ড, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, চীন ও ডেনমার্ক। নতুন এ তালিকায় চমক দেখিয়েছে এশিয়ার দেশ তাইওয়ান। জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়াকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় অবস্থান দখল করেছে দেশটি। আর তালিকায় ১১তম অবস্থানে আছে কানাডা।

ব্লুমবার্গ এর মতে, করোনা মোকাবেলায় সবচেয়ে ভালো অবস্থানে থাকা নিউজিল্যান্ড শুরু থেকে করোনা প্রাদুর্ভাবের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েছে। করোনায় কোনো প্রাণহানি ঘটার আগেই ২৫ মার্চ দেশটিতে লকডাউন জারি করা হয়। নিউজিল্যান্ডে ৭ সপ্তাহ অত্যন্ত কঠোরভাবে পালিত হয় লকডাউন। ১৯ মার্চ বন্ধ করে দেয়া হয় সীমান্ত, যা এখনো বলবৎ আছে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডর্নের সরকার বেশি বেশি নমুনা পরীক্ষা, কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং, কেন্দ্রীয় কোয়ারেন্টিন ব্যবস্থার মতো পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এর ফলে দ্রুত সময়ের মধ্যে দেশটি করোনার কবল থেকে মুক্ত হতে পেরেছে। ৫০ লাখ জনসংখ্যার দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ৭৭২ জন আর মারা গেছেন মাত্র ২৫ জন।

করোনা টিকা কার্যক্রম শুরু হবার পরও, ব্লুমবার্গের সর্বশেষ এ র‌্যাংকিংয়ে ২ ধাপ পিছিয়ে যুক্তরাজ্য ৩০তম ও ১৯ ধাপ পিছিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ৩৭ তম অবস্থানে রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ঠিক আগে অর্থাৎ ৩৬তম স্থানে আছে ব্রাজিল। ৩৫ দশমিক ৩ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার সবার পেছনে ৫৩ তম অবস্থানে আছে মেক্সিকো। আর ৫১ ও ৫২ তম অবস্থানে আছে যথাক্রমে পেরু ও আর্জেন্টিনা।

 

Related posts

‘আগামী বছর পদ্মা সেতু, মেট্রোরেলসহ কয়েকটি বড় প্রকল্পের উদ্বোধন’

razzak

জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

razzak

গ্যাসের দাম বাড়ানোর সুপারিশ

razzak

Leave a Comment

Translate »