ডিসেম্বর ৩, ২০২২
MIMS 24
আন্তর্জাতিক এই মাত্র কোভিড ১৯ প্রিয় লেখক ব্রেকিং মু: মাহবুবুর রহমান স্বাস্থ্য

কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই করোনার টিকা রপ্তানি করবে ভারত– জয়শঙ্কর

মু: মাহবুবুর রহমান

১৬ জানুয়ারি থেকে ভারতে শুরু হচ্ছে করোনা ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম। দেশের মানুষকে টিকা দেয়ার কার্যক্রম শুরুর পরপরই করোনা টিকা রপ্তানির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানাবে ভারত। দেশটির  পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, করোনা টিকা রপ্তানির বিষয়ে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই পরিষ্কার সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারবে তার সরকার। মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারী) ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের নেক্সট কনফারেন্সে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে এমন মন্তব্য করেন ভারতের এই শীর্ষ কূটনীতিক।

এস জয়শঙ্কর বলেন, ‘‘নিজ দেশের জনগণের কাছে টিকা সরবরাহের বিষয়ে বিদেশি সরকারগুলোর উদ্বেগ বুঝতে পারছে ভারত।’’ তিনি আরো বলেন, ‘‘ভারতের কি পরিমাণ টিকা প্রয়োজন হবে সে বিষয়ে খুব শিগগিরই ধারণা পাওয়া যাবে। এবং এর পরপরই বিশ্বব্যাপী টিকা রপ্তানিতে ভূমিকা রাখবে ভারত।’’

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, ‘‘আমাদের নীতি হচ্ছে আমরা অবশ্যই ভারতে প্রথমে টিকাদান শুরু করবো। আমাদের নিজেদেরও চ্যালেঞ্জ আছে। যেসব দেশ আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছে, তাদের বলছি, দেখুন এটা প্রথম মাস। করোনা টিকা উৎপাদন মাত্র শুরু হয়েছে। নির্দিষ্ট পরিমাণ টিকা মজুদের কাজও চলছে।’’

ভারতে আরও চারটি করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে বলেও জানান এস জয়শঙ্কর। এরমধ্যে রাশিয়ার ‘স্পুটনিক ভি’ ও রয়েছে। এস জয়শঙ্কর বলেন, ‘‘পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বাধিক জনবহুল দেশটিতে ভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার মারাত্মক আশঙ্কা ছিল। কিন্তু ভারত ভালোভাবেই মহামারি নিয়ন্ত্রণে সমর্থ হয়েছে।’’

ভারতের পরিকল্পনা অনুযায়ী, প্রথম ধাপে দেশটির ৩০ কোটি মানুষের জন্য ৬০ কোটি ডোজ টিকার প্রয়োজন পড়বে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া ইতোমধ্যে পাঁচ কোটি ডোজ টিকা ভারতে সরবরাহের জন্য মজুদ করেছে বলে জানা গেছে।

ধারণা করা হচ্ছে ভারতের চাহিদার ৯০ শতাংশই পূরণ হবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত এবং সিরামের তৈরি ‘কোভিশিল্ড’ টিকার মাধ্যমে। ভারতকে প্রতি ডোজ টিকা ২০০ রুপি দামে সরবরাহ করছে সিরাম ইনস্টিটিউট। ভারতের বিপুল চাহিদার কারণে অপেক্ষাকৃত কম দামে টিকা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে সিরাম।

সিরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা তিন কোটি ডোজ পাবার জন্য চুক্তি করেছে বাংলাদেশ। এ টিকার প্রতি ডোজ চার ডলার মূল্যে বাংলাদেশকে সরবরাহ করবে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার দাম পড়বে প্রায় ৩৪০ টাকা। সিরামের কাছে ভারত যে মূল্যে এই টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশের জন্য সেই মূল্য প্রায় দেড়গুণ (৪৭ শতাংশ) বেশি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

বাংলাদেশ ছাড়াও সিরাম ইনস্টিটিউটের কাছে ১ কোটি ২০ লক্ষ ডোজ ভ্যাকসিন চেয়েছে নেপাল। জরুরি ভিত্তিতে ২০ লক্ষ ডোজ টিকা চেয়েছে ব্রাজিল। ভারতের কাছে প্রতিষেধক চেয়ে আবেদন করেছে ভূটান, মায়ানমারের মতো প্রতিবেশি দেশগুলোও। ভারতে উৎপাদিত টিকার চালান দ্রুত পাঠাতে গত সপ্তাহে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠিও দিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেয়ার বলসোনারো।

Related posts

যুদ্ধজাহাজ-রণতরী নিয়ে প্রস্তুত ন্যাটো

razzak

ইউরোপের স্বাধীনতা কেড়ে নেবে রাশিয়া!

razzak

রেডিও-টেলিগ্রাফ ছিল না; ১০০ বছর আগে কীভাবে ঈদের ঘোষণা দিতো সৌদি?

razzak

১ comment

H Rainy জানুয়ারী ১৩, ২০২১ at ৬:৩২ পূর্বাহ্ন

Thanks for the information

Reply

Leave a Comment

Translate »