আন্তর্জাতিক এই মাত্র কোভিড ১৯ কোলকাতা চ্যাপ্টার প্রিয় লেখক ব্রেকিং মু: মাহবুবুর রহমান স্বাস্থ্য

ভারতে করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুরু

মু: মাহবুবুর রহমান

ভারতে শনিবার (১৬ই জানুয়ারী) সকাল থেকে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে, যাকে  বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ টিকাদান কার্যক্রম হিসেবে মনে করা হচ্ছে। সারা দেশের ৩০০৬ টি কেন্দ্রে একই সঙ্গে টিকাদান কর্মসূচির সূচনা করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এর মধ্য দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে ভারতে শুরু হলো করোনা ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম।

করোনা টিকাদান কর্মসূচির সূচনা করে ভিডিও কনফারেন্সে নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘‘ইতিহাসে এত বড় টিকাদান কর্মসূচি এই প্রথম।’’ টিকাদান কার্যক্রম শুরু হলেও, করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে আগের মতোই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে বলে উল্লেখ করেন মোদি। মাস্ক ব্যবহার এবং সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলারও আহবান জানান তিনি।

টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন। তিনি বলেন, ‘‘মহামারি মোকাবিলায় এসব টিকা আমাদের সঞ্জিবনী। পোলিও বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমরা জিতেছি আর করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মাহেন্দ্রক্ষণে পৌঁছেছি। আজকের এই দিনে আমি সামনের সারির কর্মীদের ধন্যবাদ জানাতে চাই।’’

ভারতে টিকাদান কর্মসূচিতে দুটি কোম্পানির টিকা সরবরাহ করছে দেশটি এবং দুটি টিকাই উৎপাদিত হয়েছে ভারতে। টিকাদুটি হচ্ছে সিরাম ইনস্টিটিউট কর্তৃক উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ‘কোভিশিল্ড’ এবং ভারত বায়োটেকের তৈরি ‘কোভ্যাক্সিন’ টিকা।

ভারতে প্রথম দফায় চিকিৎসক, নার্স, অ্যাম্বুলেন্স চালক, স্বাস্থ্যকর্মী, পরিচ্ছন্ন-কর্মীরা টিকা পাচ্ছেন। এর পরে পুলিশ, সামরিক বাহিনীর সদস্য এবং অন্যান্য করোনা যোদ্ধাদের টিকা দেয়া হবে। প্রথম দফায় ভারতে টিকা পাবেন প্রায় তিন কোটি মানুষ। দ্বিতীয় ধাপে টিকা দেয়া হবে ৫০ বছরের বেশি বয়স্কদের- বিশেষত যাদের আগে থেকেই কোনো না কোনো অসুস্থতা রয়েছে।

টিকা নেয়ার জন্য ভারতে প্রত্যেককে কো-উইন নামে একটি সরকারী অ্যাপে নাম রেজিস্টার করতে হচ্ছে। পরে প্রত্যেক ব্যক্তিকে কবে, কোন কেন্দ্রে, ক’টার সময়ে গিয়ে টিকা নিতে হবে, সেটা এসএমএস করে জানিয়ে দেয়া হচ্ছে। টিকা নেয়ার পরেও অন্তত আধা ঘণ্টা টিকা কেন্দ্রে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে টিকা গ্রহণকারীকে। এসময় যদি কোনো শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়, টিকাদান কেন্দ্রেই তার চিকিৎসা করা হবে এবং প্রয়োজন হলে হাসপাতালে ভর্তি করা হবে।

এদিকে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচিতে ভারতের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে টিকা গ্রহণ করেছেন দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সাইন্সের (এআইআইএমএস) এক পরিচ্ছন্নতা কর্মী। মনিশ কুমার (৩৩) নামের এই পরিচ্ছন্নতা কর্মী টিকা নেয়ার পর গণমাধ্যমকে বলেন ‘‘আমার অভিজ্ঞতা চমৎকার। টিকা নিতে আমি অনিচ্ছুক ছিলাম না… মানুষের ভয় পাওয়ার কিছু নেই। টিকা নিয়ে এখন আমার কোনো সন্দেহ নেই। সবারই টিকা নেয়া উচিত।’’

ভারতের যে দুটি টিকার মাধ্যমে ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম শুরু হলো দুটি টিকাই হচ্ছে দুই ডোজের। অর্থাৎ সর্বোচ্চ সুরক্ষা পেতে প্রত্যেককেই দুই ডোজ টিকা নিতে হবে। আবার এ দুটি টিকা স্বাভাবিক ফ্রিজের তাপমাত্রায় (দুই থেকে আট ডিগ্রি সেলসিয়াস) সংরক্ষণ করা যায়।

১৬ই জানুয়ারী ভারতে যখন টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয় তখন বিশ্বে করোনায় মোট মৃত্যু ২০ লক্ষ পার হয়েছে। আর করোনায় ক্ষতির দিক দিয়ে বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। ১৩০ কোটি জনসংখ্যার দেশ ভারতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৫৪ লাখ ৩ হাজার ৬৫৯ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৫২ হাজার ১৩০ জন।

Related posts

ক্যালগারিতে প্রথম ওপেন এয়ার বাংলাদেশি মিউজিক ফেস্টিভ্যাল!

Mims 24 : Powered by information

৪৩ বছরে ৪৪ সন্তানের মা!

razzak

অপর্ণা সেনকে দেশদ্রোহী বললেন বিজেপি নেতা দিলীপ

razzak

Leave a Comment

Translate »