এই মাত্র জাতীয় বাংলাদেশ ব্রেকিং

ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ৬৬,১৮৯টি বাড়ি বিতরণ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

‘মুজিব বর্ষ’ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলোকে আবাসন সুবিধার আওতায় আনতে সরকারি কর্মসূচির অংশ হিসাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের কাছে ৬৬ হাজার ১৮৯টি বাড়ি বিতরণ উদ্বোধন করেছেন। হতদরিদ্র মানুষের আবাসন নিশ্চিত করার প্রক্রিয়ায় নতুন অধ্যায়ে পা রাখল দেশ। ৬৬ হাজার ১৮৯ গৃহহীন পরিবার এখন বাড়ি ও জমির মালিক।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একযোগে ৪৯২ উপজেলায় এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আরো এক লাখ নতুন ঘর বানানোর কাজ শিগগিরই শুরু হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, মুজিব শতবর্ষে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণই বড় উৎসব।

অতীতের সরকারগুলো গণতন্ত্রের নামে শোষণের কালো অধ্যায় রেখে গেছেন বলে ক্ষোভ জানান শেখ হাসিনা। মুজিব শতবর্ষে জাতির পিতার স্বপ্নপূরণ করে মানুষের মুখে হাসি ফোটানোই সরকারের লক্ষ্য।

সরকার মুজিব বর্ষ উপলক্ষে গৃহহীন লোকদের জন্য ১ হাজার ১৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬৬ হাজার ১৮৯ টি গৃহ নির্মাণ করেছে। আগামী মাসে গৃহহীনদের মাঝে আরো প্রায় ১ লাখ গৃহ বিতরণ করা হবে।
পাশাপাশি, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অধীনস্থ আশ্রয়ন প্রকল্প মুজিব বর্ষ উদ্যাপনকালে ২১টি জেলায় ৩৬টি উপজেলায় ৪৪টি প্রকল্পের অধীনে ৭৪৩টি ব্যারাক নির্মাণ করে ৩,৭১৫টি পরিবারকে পুনর্বাসিত করছে। সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য এই ব্যারাক নির্মাণ করছে।
আশ্রয়ন প্রকল্প ২০২০ সালে ৮,৮৫,৬২২টি পরিবারের তালিকা তৈরি করেছে। তাদের মধ্যে ২ লাখ ৯৩ হাজার ৩৬১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার এবং ৫ লাখ ৯২ হাজার ২৬১টি পরিবারের ১-১০ শতাংশ ভূমি রয়েছে। তবে, তাদের বসবাসের বাড়ি নেই।
তিনি আরো জানান, আশ্রায়ন প্রকল্প ১৯৯৭ সালে থেকে ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৩ লাখ ২০ হাজার ৫৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসিত করেছে।
এ ছাড়াও আশ্রয়ন-২ প্রকল্প ৪,৮৪০.২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে (জুলাই ২০১০ থেকে জুন ২০২২ পর্যন্ত) ২ লাখ ৫০ হাজার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার ও ছিন্নমূল পরিবারকে পুনর্বাসিত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। ২০১০ সালের জুলাই থেকে ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত সারাদেশে ১ লাখ ৯২ হাজার ২২৭টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ইতোমধ্যে পুনর্বাসিত করা হয়েছে।
এ পর্যন্ত মোট ৪৮,৫০০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ব্যারাকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। ১ লাখ ৪৩ হাজার ৭৭৭ টি পরিবারের প্রত্যেকের ১ থেকে ১০ শতাংশ ভূমি রয়েছে। কিন্তু তাদের বাড়ি করার সক্ষমতা নেই। এ ছাড়াও, প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে সরকার জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে উদ্বাস্তু ৬ শত পরিবারের জন্য কক্সবাজারের খুরুশকুলে ২০টি পাঁচ তলা ভবন নির্মাণ করেছে।
সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ ডিটেইল্ড প্রজেক্ট প্রপোজাল (ডিপিপি) এর মাধ্যমে আরো ১১৯টি বহুতল ভবন ও সংশ্লিষ্ট কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছে।

Related posts

সাক্ষরতার হার বাড়লেও এখনো নিরক্ষর এক-চতুর্থাংশ মানুষ

razzak

রমজানে দান-সদকার বিশেষ গুরুত্ব

razzak

করোনা নেগেটিভ প্রমাণপত্র ছাড়া কানাডা প্রবেশ করা যাবেনা

Mims 24 : Powered by information

Leave a Comment

Translate »