আন্তর্জাতিক এই মাত্র স্বাস্থ্য

চীনের সিচুয়ান প্রদেশে নতুন ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা গেছে

চীনের উহান শহরে সর্বপ্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এজন্য অনেকেই চীনকে করোনার উৎপত্তিস্থলও বলে থাকেন। যখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণে সবাই তঠস্থ, তখনই নতুন আরেকটি ভাইরাস মহামারি আকারে ছড়াচ্ছে চীনে। ভাইরাসটির নাম আফ্রিকান সোয়াইন ফিভার (এএসএফ)।

গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে জানা যায়, চীনের সিচুয়ান প্রদেশে এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা গেছে। তবে অভিযোগ উঠেছে, চীনা কর্তৃপক্ষ এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব চেপে রাখতে চাইছে। এ ভাইরাস প্রাথমিকভাবে বহন করে শূকর। পরে তা মানবদেহে ছড়ায়। খবরে বলা হয়েছে, চাইনিজ কৃষি মন্ত্রণালয় বলেছে, সিচুয়ান চীনের বৃহত্তম শূকর উৎপাদন কেন্দ্র। শূকর বহনকারী এক ট্রাকে ১০টি শূকরের মধ্যে এএসএফ ভাইরাস পাওয়া গেছে। এর মধ্যে দুটি ইতোমধ্যে মারা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে শূকর অবৈধভাবে স্থানান্তর করতে গিয়ে এ রোগ ছড়িয়েছে।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে এএসএফ ছড়িয়ে পড়ার দ্বিতীয় ঘটনা এটি। দক্ষিণ-পশ্চিম সিচুয়ান এবং জিয়ানজিয়াং শহরে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে। এক ফার্মে ১২৭ শূকরের মধ্যে ৩৮টিই এএসএফ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। হুবেই প্রদেশে এক ট্রাকে আরও ১০টি শূকর আক্রান্ত হয়েছে। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, খবরে যতটা এসেছে বাস্তব পরিস্থিতি এর চেয়েও খারাপ। চিপ নেলিংগার নামের এক বিশ্লেষক বলেছেন, চীন দেখাতে চাচ্ছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে কিন্তু তা নয়।

Related posts

বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেন সাইফউদ্দিন, পরিবর্তে রুবেল

razzak

আত্মহত্যা রোধে কি বলছেন মনোবিজ্ঞানীরা

razzak

বুচা হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় রুশ রাষ্ট্রদূতকে তলব করবে কানাডা

razzak

Leave a Comment

Translate »