ডিসেম্বর ১, ২০২২
MIMS 24
এই মাত্র খেলাধুলা ব্রেকিং

বিভ্রান্তির জন্য বাংলাদেশের কাছে ক্ষমা চাইলেন ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো

মু: মাহবুবুর রহমান, নিউজিল্যান্ড থেকে

টি-টোয়েন্টি ম্যাচ এমনিতেই বল টু বল খেলার ম্যাচ। প্রতিটি বলই যেখানে হিসাব করে খেলতে হয়  সেখানে কত রানের টার্গেটে (লক্ষ্যে) আপনি ব্যাট করছে সেটা জানা আরো বেশি জরুরি। কিন্তু ৩০ মার্চ বাংলাদেশ বনাম নিউজিল্যান্ড ম্যাচে বাংলাদেশ তাদের টার্গেট জানতে পেরেছে মাঠে নেমে ৯ বল খেলার পর। বাংলাদেশের জয়ের টার্গেট পরিবর্তন হয়েছে তিন তিন বার। নেপিয়ারে সিরিজের দ্বিতীয় টি–টোয়েন্টি ম্যাচে এমন অদ্ভুতুড়ে ও বিতর্কিত ঘটনারই মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ দল।

টি–টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি বাংলাদেশ ২৮ রানে হারলেও আলোচনা ম্যাচ কর্মকর্তাদের ঐ কর্মকান্ড নিয়ে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও চলছে ম্যাচ অফিশিয়ালদের অদক্ষতা নিয়ে কঠোর সমালোচনা। তবে এমন বিভ্রান্তির জন্য  বাংলাদেশ দলের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো। বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, ম্যাচের পর জেফ ক্রো বাংলাদেশ দলের কাছে বারবার ক্ষমা চেয়েছেন।

বাংলাদেশ বনাম নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে একাধিকবার বাগড়া দেয় বৃষ্টি। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে জয়ের জন্য বাংলাদেশ পায় তিনটা টার্গেট। নেপিয়ারে আগে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড যখন ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রান সংগ্রহ করে, তখন দ্বিতীয়বারের মতো নামে বৃষ্টি। এরপর খেলা বন্ধ হয়ে গেলে পুনরায় আর ব্যাট করার সুযোগ পায়নি কিউইরা।

বিরতির পর ব্যাট করতে নামলে প্রথমে ডাকওয়ার্থ–লুইস (ডি/এল) পদ্ধতিতে বাংলাদেশের টার্গেট জানানো হয় ১৬ ওভারে ১৪৮ রান। এই লক্ষ্য নিয়ে খেলা শুরু করে লিটন দাস ও মোহাম্মদ নাঈম। তবে ইনিংসের ১.৩ ওভারের সময় খেলা বন্ধ রেখে আলোচনা চলে নতুন লক্ষ্য নিয়ে। এসময় ম্যাচ রেফারির সঙ্গে আলাপ করতে দেখা যায় বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে।

খানিক বাদে ঘোষণা আসে, জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ১৬ ওভারে ১৭০ রান! এখানেই শেষ নয়, মাঝে আবারও জানানো হয় ১৭১ রান করতে হবে বাংলাদেশ দলকে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ২৮ রানে হেরে এক ম্যাচ আগেই ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হারে নিউজিল্যান্ডের কাছে।

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় চলছে বাংলাদেশের টার্গেটের বিভ্রান্তি নিয়ে। সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমীরাই নন, ক্রিকেটাররাও যোগ দিয়েছেন সমালোচনায়। নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার জিমি নিশাম টুইট করে জানিয়েছেন, ‘‘কত রানের লক্ষ্যে ব্যাট করছেন, তা না জেনে কীভাবে রান তাড়া শুরু করা সম্ভব? পাগলামি।’’ আন্তর্জাতিক কোনো ম্যাচে এমন কিছু ঘটলে সেটিকে ‘পাগলামি’ বলে মনে হওয়াটা খুব বাড়াবাড়ি নয় নিশ্চয়ই।

ম্যাচ শেষে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও। তিনি বলেছেন, ‘‘পাঁচ ওভারে কত লাগবে, তা কেউ জানত না। ৬ ওভারে কত…তা-ও জানত না। এমন ম্যাচ এই প্রথম দেখলাম। এর আগে কখনো এমন অভিজ্ঞতা হয়নি যে ব্যাটিং শুরুর পর জানা গেল কত রান লাগবে। লক্ষ্য চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত খেলা শুরু করা উচিত হয়নি।’’

ম্যাচে যে টার্গেট বিভ্রান্তির প্রভাব পড়েছে সেটা ম্যাচ শেষে জানিয়েছেন টাইগার টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তিনি বলেন, ‘‘আমরা জানতাম না বৃষ্টি আইনে কত রানের লক্ষ্য পেয়েছি। হুট করে স্কোর বোর্ড পরিবর্তন হওয়ায় আমরা বিভ্রান্ত হয়েছি। তবে এটা খেলারই অংশ।’’

অবশ্যই এরকম বিভ্রান্তিও খেলারই অংশ। কিন্তু ক্রিকেট দুনিয়ায় এমন বিভ্রান্তির দৃষ্টান্ত খুবই বিরল। ক্ষমা চাইলেও নিজের এই অপ্রত্যাশিত ত্রুটির জন্য নিশ্চয়ই অনেকদিন অনুশোচনায় পুড়বেন কিউই রেফারি জেফ ক্রো!

মু: মাহবুবুর রহমান ; নিউজিল্যান্ডের মেসি ইউনিভার্সিটির পিএইচডি গবেষক

Related posts

ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়া হবে: মাস্ক

razzak

৪২তম বিসিএসের ফল, ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সুপারিশ

razzak

পদ্মা সেতুর সড়ক পথের কার্পেটিং শুরু অক্টোবরে

razzak

Leave a Comment

Translate »