অর্থনীতি আন্তর্জাতিক কোভিড ১৯ নারী প্রবাস কথা প্রিয় প্রবাসী যুক্তরাষ্ট্র রাজনীতি

কানাডার অর্থমন্ত্রীর জুতা কাহিনী

ডেস্ক রিপোর্ট:  কানাডার বর্তমান অর্থমন্ত্রী  ১৯ এপ্রিল হাউজ অব কমন্সে  তাঁর প্রথম বাজেট পেশ করেন। কানাডার ইতিহাসে কোনো নারী অর্থমন্ত্রীর দেয়া প্রথম বাজেটও এটি। ইন্টারেস্টিং বিষয় হল বাজেট পেশের আগে কানাডার অর্থমন্ত্রী নতুন জুতা কেনেন। সেই জুতা পায়ে দিয়ে তিনি সংসদে যান এবং বাজেট পেশ করেন। এটিই হচ্ছে কানাডার ঐতিহ্য। সেই ১৯৫০ সাল থেকে এটি প্রচলিত আছে।  অর্থমন্ত্রীর জুতার স্টাইলের উপর সবসময় মিডিয়ার তীক্ষ্ণ নজর থাকে। কারণ বাজেটের আগে অর্থমন্ত্রীর কেনা জুতা দেখে বাজেটে কী গুরুত্ব পাচ্ছে সে ব্যাপারে সবাই এক ধারনা নেয়।
কানাডার বর্তমান অর্থমন্ত্রী ও উপপ্রধানমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রীল্যান্ড। তার ব্যক্তিত্ব এক্টিভিটিজ এক কথায় অসাধারণ। এক সময়কার ডাকসাইটে সাংবাদিক তিনি। রয়টার্সের সাংবাদিক হিসেবে তাকে রাশিয়া পার্সোনা নন গ্রাটা’ করেছিলো। ব্যবস্থাপনা সম্পাদকের পদ থেকে রিজাইন করে হয়ে যান কানাডার এমপি।
করোনার কারনেই হোক আর নারী অর্থমন্ত্রী বাজেট দিচ্ছেন বলেই হোক- মিডিয়া এবার অর্থমন্ত্রীর জুতার দিকে তেমন একটা নজর দেয়নি। কোভিডকালীন বিপুল ব্যয়, অকল্পনীয় ঘাটতির আলোচনায় অর্থমন্ত্রীর জুতার আলোচনাটি আড়ালই হয়ে গিয়েছিলো।তাতে কি। ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড অর্থমন্ত্রীদের চিরায়ত ঐতিহ্যকে উপেক্ষা করেননি। বাজেট পেশের আগের দিন রোববারই তিন বাজেট অধিবেশনে পায়ে দেয়ার জন্য জুতা কিনে ফেলেন।
টরন্টোর ডাউন ডাউনে তার নিজের নির্বাচনী এলাকার একটি প্রতিষ্ঠান থেকে বাজেট অধিবেশনের জুতা কিনেন তিনি। ’ভাজেল’ নামের এই জুতা কোম্পানিটি টরন্টোয় যাত্রা শুরু করেছিলো ২০১৫ সালে। অপেক্ষাকৃত নতুন এবং ক্ষুদ্র একটি কোম্পানি থেকে বাজেট অধিবেশনের জুতা কিনে নিয়ে আসেন কানাডার অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড।
জুতা কিনে এনেই তিনি ফোন করেন কোম্পানিটির প্রতিষ্ঠাতা এবং ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর এল আইয়ুবজাদেহকে। ইরানি বংশোদ্ভূত তরুনীকে অর্থমন্ত্রী জানান, তার ডিজাইন করা, তার প্রতিষ্ঠানের জুতা পরে তিনি এবার বাজেট পেশ করতে যাচ্ছেন।
বাজেট অধিবেশনে পায়ে দেয়ার জন্য অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ডের বাছাই করা জুতার তাৎপর্য কি? বাজেটপূর্ব সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পোষ্টে তিনি উল্লেখ করেছেন, ক্ষুদ্র এবং মাঝারি শিল্পকে তিনি পৃষ্ঠপোষকতা করতে চান। বাজেট অধিবেশনে পায়ে দেয়ার জন্য তিনি বেছে নিয়েছেন ক্ষুদ্র একটি কোম্পানি আর কানাডার ’ওয়ার্কিং উইম্যান’দের পায়ে দেয়ার জুতা। কোভিড থেকে অর্থনীতিকে উদ্ধারের কর্মসূচীকে তিনি ‘ফেমিনিস্ট রিকভারি’ হিসেবে ঘোষনা দিয়েছিলেন আগেই। বাজেটে নজর দিয়েছেন কানাডার ‘ওয়ার্কিং উইম্যান’দের দিকে।”

Related posts

সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত, মৃত্যু ১১৫

Irani Biswash

আমাজন রক্ষায় ৪ লাখ একর জমি কিনলেন সুইডিশ ধনকুবের

razzak

দেশের পথে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৮ লাখ টিকা

razzak

Leave a Comment

Translate »