অর্থনীতি আইন ও বিচার আন্তর্জাতিক জীবনধারা টেকনোলজি বিনোদন ব্রেকিং যুক্তরাষ্ট্র সম্পাদকীয় সেবামূলক কাজ

বিল- মেলিন্ডার প্রেম-প্রণয়

আহমেদ হুসাইন: বিশ্বজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস এবং তার স্ত্রী মেলিন্ডা। তবে এবার অর্থ সম্পদ বা ধনী ব্যক্তি হিসেবে নয় বরং ভিন্ন একটি কারণেই তারা খবরের শিরোনাম হয়েছেন। সম্প্রতি এই ধনকুবের দম্পত্তির বিচ্ছেদ ঘটেছে। আমি সে কথা বলছি না। একটু পেছনে ফিরে যাই। কিভাবে এ দুটি মানুষের মধ্যে প্রেম এবং প্রণয় হয়েছিল সে কথা জেনে নেই।
কাজের সুবাদেই মেলিন্ডা আর বিল গেটসের পরিচয় হয়। ১৯৮৭ সালে মাইক্রোসফট করপোরেশনে প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে যোগ দেন মেলিন্ডা। তখনই তাঁদের প্রথম দেখা। বিল গেটস তখন মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী (সিইও)। কিছুদিন পর মেলিন্ডাকে ডিনারে যাওয়ার প্রস্তাব দেন বিল গেটস। শুরুটা হয়েছিল এভাবেই। এরপর সাত বছর চুটিয়ে প্রেম করেছেন দুজন। এক তথ্যচিত্রে বিল গেটস বলেন, ‘আমরা একে অপরের খুব খেয়াল রাখতাম। তখন আমাদের সামনে দুটি সম্ভাবনা ছিল। হয় আমাদের প্রেমে বিচ্ছেদ হবে, নয়তো আমাদের বিয়ে করতে হবে।’
সাত বছরের প্রেমকে পূর্ণতা দিতে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন এই যুগল। যদিও মেলিন্ডার মা এই সিদ্ধান্ত শুনে বেঁকে বসেছিলেন। এত বড় প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্ত মেলিন্ডার মায়ের কাছে তখন ঠিক পছন্দ হয়নি। কিন্তু সেই কথায় কান না দিয়ে বিল গেটসের সঙ্গেই আংটি বদলের সিদ্ধান্ত নেন মেলিন্ডা।
১৯৯৪ সালের হাওয়াই দ্বীপের লানাইয়ে বিল-মেলিন্ডার বিয়ের আসর বসেছিল। ম্যানিলে বে হোটেলে জাঁকজমকপূর্ণ এই বিয়ের আয়োজন করা হয়। আলোচিত এই বিয়েতে প্রায় ১ মিলিয়ন ডলার অর্থ খরচ করা হয়েছিল। বিয়ের অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ গোপনীয়তা চেয়েছিলেন বিল গেটস। তাই তিনি পুরো হোটেলটি ভাড়া নিয়েছিলেন। হোটেলের ওপর দিয়ে কোনো হেলিকপ্টার যাতে উড়ে যেতে না পারে,তাই ওই দিন স্থানীয় সব হেলিকপ্টার ভাড়া নিয়ে রেখে দিয়েছিলেন বিল গেটস। বিল-মেলিন্ডার বিয়েতে কোনো গণমাধ্যম যাওয়ার সুযোগ পায়নি। নিমন্ত্রিত অতিথির তালিকাও ছিল সংক্ষিপ্ত। মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা পল অ্যালেন, বিনিয়োগগুরু ও মার্কিন ধনকুব ওয়ারেন বাফেট, দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের সাবেক প্রকাশক ক্যাথেরিন গ্রাহামের মতো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা এই বিয়েতে আমন্ত্রিত ছিলেন।
বিয়ের কেকের গাণিতিক হিসাব বিয়ের দিনে ধারণ করা একটি মজার ভিডিও ঠিক ২৫ বছর পর ২০১৯ সালে এসে নিজের ফেসবুক পেজে পোস্ট করেন মেলিন্ডা। ভিডিওটির মাধ্যমে বিয়ের সুবর্ণজয়ন্তীর বিশেষ এই ক্ষণ মনে করিয়ে দেন তিনি। ভিডিওতে দেখা যায়, বিল গেটস কী যেন এক জটিল হিসাব কষে কেক কাটছেন। আর পাশে দাঁড়ানো
মেলিন্ডা হেসেই গড়াগড়ি খাচ্ছেন। কেক কাটার পেছনের ঘটনাটি ভিডিওর ক্যাপশনে লিখে দিয়েছিলেন মেলিন্ডা। ক্যাপশনে মেলিন্ডা লেখেন, ‘আমি তোমাকে বলেছিলাম, এখন কেক কাটার সময় হয়েছে। আর তুমি ভেবেছিলে, তোমাকে সেখানকার সবার জন্য সমান ভাগ করে কেক কাটতে হবে। সবাই যেন এক সাইজের কেক পায় সে জন্য তুমি দ্রুত অঙ্ক কষা শুরু করে দিলে!’
বাবা–মায়ের উপহারবিয়ের দিন বিল গেটসের মা–বাবা নববিবাহিত দম্পতিকে দুটি পাখির ভাস্কর্য উপহার দেন। পাখির অবয়ব দুটি পাশাপাশি বসে একই দিকে তাকিয়ে আছে। বিয়ের পর থেকেই পাখির ভাস্কর্যটি বিল-মেলিন্ডা দম্পতির বাড়ির সামনেই অবস্থান করছে। ২০১৮ সালে বার্ষিক এক চিঠিতে মেলিন্ডা লিখেছিলেন, ‘আমি সব সময় এটির (ভাস্কর্য) কথা মনে রাখি। প্রকৃতপক্ষে আমরাও (মেলিন্ডা ও বিল গেটস) তো একই অভিমুখে তাকিয়ে আছি।’

Related posts

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চলছে তৃতীয় দিনের মতো টিকাদান কর্মসূচি

Mims 24 : Powered by information

শপথ নিলেন নিউজিল্যান্ডের নতুন প্রধানমন্ত্রী ক্রিস্টোফার লুক্সন; স্কুলে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ

Mims 24 : Powered by information

ঢাকা-সিলেট ফোর লেন: এডিবি দেবে ১৫,১৩০ কোটি

razzak

Leave a Comment

Translate »