আন্তর্জাতিক কোভিড ১৯ জীবনধারা ধর্ম ও জীবন

মালয়েশিয়া প্রবাসীদের গৃহবন্দী ঈদ উদযাপন

ডেস্ক সংবাদ:   টানা দুই বছর গৃহবন্ধী হয়ে ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন করেন বিশ্বের অধিকাংশ মুসলিম দেশ।  ১৩ মে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলির সাথে মিল রেখে মালয়েশিয়ায়ও পালিত হয় ঈদ-উল-ফিতর।

মালয়েশিয়া মসজিদে  স্থায়ী নাগরিকদের  সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদ-উল-ফিতর নামাজ আদায় করার অনুমতি থাকলেও প্রবাসীদের জন্য ছিলো সম্পূর্ণ নিষেধ। তাই  এক মাস  সিয়াম সাধনার পরে প্রবাসীরা নিজ কর্ম ক্ষেত্রে ও নিজ বাসায় সমবেত হয়ে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের নামাজ আদায় করেছেন। নামাজ শেষে নিজ জম্মভূমি ও পরিবার পরিজনদের জন্য দোয়া করা হয়েছে। নামাজ শেষে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সবাই নিজ বাসায় অবস্থান করছেন। এবং সকলকে জানিয়েছেন “ঈদ মোবারক”

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মালয়েশিয়ায় ৭ মে থেকে ৭ জুন পর্যন্ত মাসব্যপী লকডাউন ঘোষণায় দেশটিতে বসবাসরত প্রায় ১০ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশীর মধ্যে অনেকেই ব্যবসা ও চাকরি হারিয়েছেন। আর্থিক টানাপোড়েন, উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে গত বছরের দু’টি ঈদের মতো এবারের ঈদুল ফিতরও অতিবাহিত হয়েছে প্রবাসীদের। করোনার কারণে দীর্ঘ এক বছরেও বেশি সময় ধরে চাটার্ড ফ্লাইট ব্যতিত স্বাভাবিক বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় প্রবাসীরা ছুটিতে নিজ দেশেও ফিরতে পারছেন না। অপর দিকে যারা দেশে ফিরেছেন তারাও মালয়েশিয়ায় ফিরত পারছেন না। অনিশ্চিয়তার মাঝেই তিনটি ঈদ অতিবাহিত হলো।

মালয়েশিয়ার সরকারের বেধে দেয়া স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী, প্রত্যেক মসজিদে ৫০ জনের বেশি অনুমতি না থাকায় প্রবাসীরা এবার জামাতে নামাজ আদায় করার সুযোগ পাননি। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় রাজধানী কুয়ালালামপুরে শুধু বাংলাদেশী মসজিদ তিতিংসায় সূরাও বায়তুল মোকাররম ও কোতারায়া বাংলাদেশী মার্কেটের মসজিদে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নামাজ আদায় হয়েছে।

চলমান লকডাউন প্রসঙ্গে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন বলেছেন, বর্তমান করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ৭ মে থেকে ৭ জুন পর্যন্ত চলবে লকডাউন এমসিও ৩.০। লকডাউনের মধ্যে অর্থনীতি সচল রাখতে অর্থনৈতিক ও উৎপাদন খাতগুলো যথারীতি খোলা থাকছে। আন্তঃজেলায় যাতায়াত, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রেস্টুরেন্ট ও সভা সমাবেশ বন্ধ থাকবে। শর্ত সাপেক্ষে বিয়ের অনুষ্ঠান, ঈদের নামাজ, মসজিদ ও উপাসনালয়গুলো সীমিত সংখ্যক লোকের উপস্থিতিতে পরিচালিত হতে পারে। অফিস ও প্রাইভেট সেক্টরে ৩০ ভাগ স্টাফ কাজ করতে পারবে। বাকিরা বাসায় অফিসের কাজ করতে হবে।

Related posts

ক্ষুব্ধ রাশিয়ার সৈন্যরা, ইউক্রেনে জ্বালানি খাবারের অভাব: বিবিসি

razzak

ভারতে এবার রেললাইন অবরোধ কৃষকদের

Mims 24 : Powered by information

তুষার শুভ্র চাদরে ঢাকা নিউইয়র্ক : বিপর্যস্ত জনজীবন

Mims 24 : Powered by information

Leave a Comment

Translate »