আন্তর্জাতিক খেলাধুলা জীবনধারা ব্রেকিং স্বাস্থ্য

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন বোলার প্যাট্রিক প্যাটারসন কেমন আছেন?

খেলার খবর:   ওয়েস্ট ইন্ডিজ়ের প্রাক্তন বোলার প্যাট্রিক প্যাটারসন বর্তমানে আর্থিক সমস্যার মধ্যে লড়াই করছেন। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে গেছে যে খাবারের জন্য ন্যুনতম পয়সাটুকুও নেই। ক্রিকেট থেকে সরে আসার পর প্যাট্রিক প্যাটারসন কার্যত হারিয়েই গিয়েছিলেন।

১৯৮৭ এর গ্রীষ্মে যখন মাইকেল হোল্ডিং অবসরে যাওয়ার কথা ভাবছেন, তখন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ঠিক তার বিকল্প খুঁজে খুঁজে হয়রান হতে হয়নি। হোল্ডিংয়ের ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে লম্বামতো তরুণ, সুঠামদেহী এক জ্যামাইকান ফাস্ট বোলারের অভিষেক হয়। জাতীয় দলে অভিষেক হওয়ার আগেই কাউন্টি ক্রিকেটে ল্যাঙ্কাশায়ার আর শেফিল্ড শিল্ডে তাসমানিয়ার হয়ে খেলার ডাক পেয়েছিলেন। হোল্ডিং-মার্শালের মতো ভয়ধরানো গতি নিয়েই আগমন ঘটেছিল তার। এই ব্যক্তি আর কেউ নন, প্যাট্রিক প্যাটারসন।

পরের বছর ভারত সফরের প্রথম টেস্টে দিল্লিতে স্বাগতিক ভারতকে নিজের গতি দিয়ে গুঁড়িয়ে দেন প্যাটারসন। ২৪ রানে ৫ উইকেট পাওয়ার পথে ৭৫ রানে অলআউট করেন ভারতকে। মুম্বাইয়ে আরেকবার ৫ উইকেট পান প্যাটারসন। সিরিজ শেষ করেন ১৭ উইকেট নিয়ে।

১৯৮৮ মেলবোর্ন টেস্টের ৪র্থ দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেলএন্ডাররা দারুণ লড়াই করেছিলেন। স্টিভ ওয়াহ অনবরত বাউন্সার দিয়ে যাচ্ছিলেন এবং দলের ফিল্ডারদের থেকে ‘মৌখিক সহায়তা’ও পাচ্ছিলেন। প্যাটারসনের ঘাড় বরাবর দু’তিনবার বাউন্সার মারেন ওয়াহ। ওয়াহ সেই ইনিংসে ৫ উইকেট নেন ।

১৯৯২-৯৩ এর অস্ট্রেলিয়া সফরে বোর্ডের সাথে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয় প্যাটারসনের। ব্রিসবেনে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয় যে অধিনায়ক রিচি রিচার্ডসনকে কিছু না বলেই মাঠ থেকে উঠে যান তিনি। ১৯৯৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলার সময় সমস্যা আরো বাড়তে থাকে, তখন দল থেকে বাদ পড়েন। প্যাটারসন ২৮ টি টেস্ট খেলেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে। মাত্র ৫২ বোলিং স্ট্রাইক রেটে ৯৩ উইকেট পেয়েছেন তিনি। খেলেছেন ৫৯টি ওয়ানডেও। এরপর একপ্রকার গায়েব হয়ে যান। প্রায় দুই দশক তার টিকিটিরও দেখা পায়নি কেউ।

নব্বইয়ের দশকে স্মৃতির অতল গহ্বরে তলিয়ে যাওয়া প্যাট্রিক প্যাটারসনকে খোঁজার ব্যাপক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের সাংবাদিক ভারত সুন্দরেসান।  ২০১৭ সালে একজন সাবেক আমেরিকান নাবিকের দেখা পান যিনি নিখোঁজ মানুষদের খুঁজে বের করে থাকেন। গ্যারি সোবার্স অবসর নেয়ার পরে তিনি খেলা দেখা ছেড়ে দেন, যার কারণে প্যাট্রিক প্যাটারসনের নামটা তার কাছে পরিচিত মনে হয় না। আশা অনেকটাই ছেড়ে দেন সুন্দরেসান।

কিন্তু পরদিন বিকেলে অবিশ্বাস্যভাবে সেই আমেরিকান নাবিকের কাছ থেকে প্যাটারসনের ফোন নাম্বার ও বাসার ঠিকানা পেয়ে যান সুন্দরেসান। ফ্রেড লকস নামে প্যাটারসনের এক বন্ধুর কাছ থেকে তার ঠিকানা উদ্ধার করেছিলেন সেই নাবিক। ভারত সুন্দরেসান ফ্রেড লকসের কাছে জানতে পারেন, প্রায় ২০ বছর ধরে মানসিকভাবে অসুস্থ একসময়ের এই গতিদানব। তারপর তাকে সাথে নিয়ে সাংবাদিক যান বারে। বারে বসে বিয়ার পান করতে করতে প্যাটারসনের মানসিক অবস্থা কিছুটা বুঝতে পারেন সুন্দরেসান। তার মন অনেকটা বাস্তব আর কল্পনার মাঝে দোল খায়। প্যাটারসন জানেনই না নারীরা এখন সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্রিকেট খেলছে।

কিংস্টনের একতলা বাড়িতে লোকচক্ষুর প্রায় অন্তরালে থাকা প্যাটারসন বলেন, “আমি সবকিছু থেকে অনেক অনেক দূরে আছি, এখানে চারপাশের কোনোকিছু আমাকে সেই স্মৃতিগুলো মনে করিয়ে দেয় না। সম্ভবত বিশ বছরেরও বেশি সময় চলে গেছে। পৃথিবী এগিয়ে গেছে। ৩৬০° ঘুরে গেছে ক্রিকেট। আমি এখানেই পড়ে আছি।” একসময় ব্যাটসম্যানদের ত্রাসের কারণ হওয়া গতিদানবের কী নিদারুণ, অসহায় জীবন যাপনে অভ্যস্থ হয়ে গেছেন!

Related posts

যেভাবে দূর হবে ডাবল চিন!

razzak

ভারতের উত্তরাখণ্ডে বন্যায় মৃত্যু বেড়ে ৫২

razzak

জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান নির্বাচিত

Mims 24 : Powered by information

Leave a Comment

Translate »