ডিসেম্বর ৮, ২০২২
MIMS 24
অপরাধ আইন ও বিচার জাতীয় জীবনধারা বাংলাদেশ ব্রেকিং শিক্ষা

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার নামে চুরির অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা:   পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গবেষণার মান নিয়ে সমালোচনার পাশাপাশি ‘প্ল্যাজিয়ারিজমের’ অভিযোগ বাড়ছে। কেবল পদোন্নতির শর্ত পূরণে শিক্ষকরা গবেষণার নামে যা করছেন তা ‘দায়সারা’ ও ‘অনাকর্ষণীয়’। কিন্তু কারা সেই শিক্ষক যাদের গবেষণা নিয়ে অভিযোগ উঠছে সে নিয়ে নেই কোন সুনির্দিস্ট তালিকা নেই।

বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে এই চুরি ধরার আদর্শ সফটওয়ার ব্যবহারের রীতি না থাকায় কত গবেষণা এধরনের অভিযোগের আওতায় পড়তে পারে তারও কোনও আন্দাজ নেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের কাছে।

এমনকী ঠিক কী কী করলে চুরি হয়েছে ধরা হবে এবং সেটার সমাধান কীভাবে করা হবে সে বিষয়ে কেন্দ্রীয় কোনও নীতিমালা নেই। সব মিলিয়ে উন্মুক্ত পরিবেশে প্লেজারিজম চলছে বলে মন্তব্য করেছেন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রবন্ধ প্রকাশকারী শিক্ষকরা। তবে  ইউজিসি বলছে, নীতিমালা তৈরির কাজে হাত দিয়েছেন তারা। একইসঙ্গে গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি ঠেকাতে অ্যান্টি–প্লেজারিজম সফটওয়্যার ‘টার্নিটিন’ কিনে প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়ে সেটি ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার বিষয়েও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

আমাদের দেশে বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজিতে লিখিত গবেষণাপত্র যাচাইয়ের ব্যবস্থা থাকলেও, বাংলা লেখা যাচাইয়ের কোনও ব্যবস্থাই নেই। ফলে, এ ধরনের বহু দুষ্কর্ম আড়ালেই থেকে যায়। সহজ কথায় অন্যের কাজ বা ধারণা, তাদের অসম্মতিতে, কোনও স্বীকৃতি প্রদান ছাড়াই নিজের কাজে যুক্ত করার মাধ্যমে উপস্থাপনের নামই প্লেজারিজম।

বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য সাজ্জাদ হোসেন বলেন, কনসেপ্ট মিলে যেতে পারে সেটা চৌর্যবৃত্তি নয়। একই বিষয়ে একাধিক গবেষণাও হতে পারে। দেখতে হবে, হুবহু কপি যেন না হয়। একজনের কাজ আরেকজন এগিয়ে নিতে পারেন। গবেষণায় কপি করাটা একেবারেই নিষিদ্ধ। যারা সেই বিধিনিষেধ লঙ্ঘন তরেন তাদের বিরুদ্ধে বিভাগ সিদ্ধান্ত নিতে পারে। বলা হয়ে থাকে ২০ পারসেন্ট পর্যন্ত কপি করা যায়। তবে অবশ্যই সেটা সিঙ্গেল সোর্স থেকে না। যেখান থেকেই নেন সেটার যথাযথ পন্থায় উল্লেখ করতে হবে।

এদিকে গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি ঠেকাতে এবার অ্যান্টি প্লেজারিজম সফটওয়্যার ‘টার্নিটিন’ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউজিসি। ৩০ মে ভাচুর্য়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত প্লেজারিজম চেকার ওয়েব সার্ভিস ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই সফটওয়্যার দিয়ে গবেষক এবং শিক্ষকদের গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি বিষয়টি নির্ধারণ করা যাবে।

এ বিষয়ে ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. আবু তাহের বলেন, প্রাথমিকভাবে ৩০টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য এই সফটওয়্যারের সেবা সরবরাহ করা হবে। পর্যায়ক্রমে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে এর ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে। এটি কেনার প্রয়োজনীয়তা ও ব্যবহার নিয়ে নীতিনির্ধারক পর্যায়ে কাজ চলছে।

Related posts

করোনা আপডেট, মৃত্যু ১০৮

Irani Biswash

সংসদ নির্বাচনের আগে সীমানা নির্ধারণ বিল পাসের সুপারিশ

razzak

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আজ মুখোমুখি বাংলাদেশ-পাকিস্তান

razzak

Leave a Comment

Translate »