আন্তর্জাতিক খেলাধুলা ব্রেকিং সংগঠন সংবাদ

দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক পেলেন মহারাজ

খেলার সংবাদ:   জিততে বা ম্যাচ বাঁচাতে হলে দুর্দান্ত কিছু করতে হতো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। শেষ ইনিংসে ক্যারিবিয়ানদের টার্গেট ছিল ৩২৪ রান। অথচ গোটা সিরিজে একবারও নিজেদের স্কোরকে দুইশ পর্যন্ত নিতে পারেনি স্বাগতিকরা। এই তথ্যেই বুঝা যায় কাজটা কতো কঠিন ছিল। কেশভ মহারাজের দুর্দান্ত বোলিংয়ে কঠিন এই কাজটা করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ১৬৫ রানে গুটিয়ে গিয়ে ১৫৪ রানে ম্যাচ হেরেছে স্বাগতিকরা।

এই জয়ে সিরিজ জয়ের পাশাপাশি ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করল দক্ষিণ আফ্রিকা। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটিও জিতেছিল প্রোটিয়াসরা। এ নিয়ে দীর্ঘ চার বছর পর দেশের বাইরে টেস্ট সিরিজ জিতল দক্ষিণ আফ্রিকা।

সেন্ট লুসিয়ায় দ্বিতীয় ইনিংসে বিনা উইকেটে ১৫ রান নিয়ে আজ চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শুরুতে কাগিসো রাবাদার পেস তোপে পড়েন ক্যারিবিয়ানরা। নতুন বলে দুর্দান্ত স্পেলে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক ক্রেইগ ব্রাথওয়েট ও শেই হোপকে ফিরিয়ে দেন তিনি।

এরপর চারে নামা কাইল মেয়ার্সকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ার চেস্টা করেছেন কাইরন পাওয়েল। এই জুটিও বেশি বড় হতে দেননি রাবাদা। দলীয় ৯০ রানের মাথায় রাবাদাকে পুল করতে গিয়ে ক্যাচ আউট হয়েছেন মেয়ার্স। তার পরের গল্পটা মহারাজের।

একটু পরই মহারেজকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে সীমানায় ধরা পড়লেন দারুণ খেলতে থাকা পাওয়েল। ৩৬.৩ ওভারের ঘটনা এটি। পরের বলে জেসন হোল্ডারকে শর্ট লেগে ক্যাচ বানান মহারাজ। পরের বলে হ্যাটট্রিক। আর এতে বড় অবদান ফিল্ডার ভিয়ান মুল্ডারের। মহারাজের ওভারের শেষ বলটা ছিল লেগ স্ট্যাম্পের বাইরে। অযথাই খোঁচা দিতে চাইলেন জশুয়া ডি সিলভা। লেগ স্লিপে চোখের পলকে ডানদিকে নিচু হয়ে ঝাঁপিয়ে দুর্দান্তভাবে বল তালুবন্দি করেন মুল্ডার, মহারাজের হ্যাটট্রিক।

দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক পেলেন মহারাজ। ১৯৬০ সালে লর্ডসে প্রোটিয়াদের হয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম হ্যাটট্রিক পেয়েছিলেন দেশটির পেসার জেফ গ্রিফিন।

এরপর জার্মেইন ব্ল্যাকউড ও কেমার রোচ প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন। ২৭ রানে রোচকে ফিরিয়ে সেই প্রতিরোধ ভেঙে পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন মহারেজ। ব্ল্যাকউডকে (২৫) ফেরান লুঙ্গি এনগিডি। চোটের কারণে ব্যাট করতে পারেননি রোস্টন চেজ।

দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক পেলেন মহারাজ। ১৯৬০ সালে লর্ডসে প্রোটিয়াদের হয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম হ্যাটট্রিক পেয়েছিলেন দেশটির পেসার জেফ গ্রিফিন।

এরপর জার্মেইন ব্ল্যাকউড ও কেমার রোচ প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন। ২৭ রানে রোচকে ফিরিয়ে সেই প্রতিরোধ ভেঙে পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন মহারেজ। ব্ল্যাকউডকে (২৫) ফেরান লুঙ্গি এনগিডি। চোটের কারণে ব্যাট করতে পারেননি রোস্টন চেজ।

Related posts

ঢাকায় পাতাল মেট্রোরেল চলবে ২০২৬ সালে

Irani Biswash

আপনারা আল্লাহর মেহমান, বাংলাদেশের জন্য দোয়া করবেন

razzak

অলিম্পিকে ‘অলিম্পিক লরেল’ গ্রহণ-পরবর্তী ইউনূসের ভাষন দেখেছে সর্বোচ্চ টেলিভিশন দর্শক

Irani Biswash

Leave a Comment

Translate »