সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
MIMS 24
আইন ও বিচার আন্তর্জাতিক জনদুর্ভোগ জীবনধারা ধর্ম ও জীবন ব্রেকিং রাজনীতি শিক্ষা সংগঠন সংবাদ

আফগানিস্তানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে তালেবানদের ইসলামি শরীয়াহ আইন চালু

আন্তর্জাতিক সংবাদ : সরকারি বাহিনীর কাছ থেকে দখল ছিনিয়ে নেওয়ার পর আফগানিস্তানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের তাখার প্রদেশে ইসলামি শরীয়াহ আইন চালু করেছে তালেবান। এই প্রদেশের কয়েকটি জেলায় ইসলামি আইন ও বিধি-বিধান পালনের নতুন নির্দেশনা জারি করেছে গোষ্ঠীটি।

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আরিয়ানা এক প্রতিবেদনে এই খবর দিয়েছে। স্থানীয় সুশীল সমাজের মানবাধিকার কর্মীরা বলেছেন, তাখার প্রদেশের বেশ কয়েকটি জেলা সামরিক বাহিনীর কাছ থেকে নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর তালেবানের নতুন নির্দেশনা এসেছে। গত বৃহস্পতিবার কাপিসা প্রদেশের তাগাব জেলার নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান।

মানবাধিকার কর্মীরা বলেছেন, পুরুষদের দাড়ি রাখার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান। একই সঙ্গে নারীদের একা বাড়ি থেকে বের হতে বারণ ও মেয়েদের জন্য যৌতুকের বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে এই গোষ্ঠী।

তাখারের মানবাধিকার কর্মী মেরাজুদ্দিন শরীফি বলেছেন, তারা নারীদের মুহারম ছাড়া বাড়ি থেকে বাইরে বের না হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি পুরুষদের দাড়ি রাখার আহ্বান জানিয়েছে। তালেবানরা বিনা প্রমাণে বিচারের ওপর জোর দিয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তাখার প্রাদেশিক পরিষদের সদস্যরা বলেছেন, তালেবানের হাতে যেসব এলাকার পতন ঘটেছে; সেসব এলাকায় খাবারের উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে।

পরিষদের সদস্য মোহাম্মদ আজম আফজালি বলেছেন, তাখারের লোকজন সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন। সেখানে সরকারি কোনও পরিষেবা সচল নেই। ক্লিনিক এবং স্কুলগুলো বন্ধ রয়েছে।

এদিকে, তাখারের গভর্নর আব্দুল্লাহ কারলুক বলেছেন, সরকারি বিভিন্ন ভবন তালেবানের সদস্যরা ধ্বংস করেছেন। তালেবানের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকায় সরকারি পরিষেবা বন্ধ রয়েছে। তিনি বলেছেন, তালেবান সবকিছু লুটপাট করেছে। যে কারণে সেখানে পরিষেবা দেওয়ার মতো সরকারি কোনও অবকাঠামোর অস্তিত্ব নেই।

প্রদেশের মানবাধিকার কর্মীরা বলেছেন, এ ধরনের পরিস্থিতি মেনে নেওয়া যায় না। তালেবানের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করা উচিত। তবে তাখার প্রদেশে ইসলামি শরীয়াহ আইন চালুর দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে তালেবান। গোষ্ঠীটি বলছে, এটি তাদের বিরুদ্ধে প্রচারণা।

অন্যদিকে, রোববার এক বিবৃতিতে তাজিকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা কমিটি বলেছে, ‌‘তালেবানের যোদ্ধারা সীমান্ত অভিমুখে এগিয়ে আসায় আফগানিস্তানের বাদাখাশান প্রদেশের সীমান্ত পেরিয়ে আফগান সামরিক বাহিনীর ৩ শতাধিক সদস্য তাজিকিস্তানে ঢুকেছে। শনিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে আফগান সৈন্যরা সীমান্ত অতিক্রম করে।’

‌‘মানবতাবাদ এবং ভালো প্রতিবেশী নীতির আলোকে তাজিক কর্তৃপক্ষ পশ্চাদপসরণকারী আফগান সরকারি বাহিনীর সদস্যদের তাজিকিস্তানে প্রবেশ করতে দিয়েছে’— বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

চলতি বছরের এপ্রিলের মাঝের দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আফগানিস্তানে ‌‘চিরকালীন যুদ্ধ’ অবসানের ঘোষণা দেওয়ার পর নিজেদের তৎপরতা বৃদ্ধি করে তালেবান। দেশটির উত্তরাঞ্চলের প্রায় অর্ধেক এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তারা; যে এলাকাটি মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের শক্তিশালী ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত।

এছাড়া বিদেশি সামরিক বাহিনীর সমর্থনের অবসানের সঙ্গে সঙ্গে দেশটি ক্রমবর্ধমান হারে আরও অস্থিতিশীল হয়ে উঠছে। তালেবান যোদ্ধারা অনেক প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য চারদিকে অবস্থান নিয়েছে। বর্তমানে তালেবান দেশটির ৪২১টি জেলার প্রায় এক তৃতীয়াংশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে বলে ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপি জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো গত এপ্রিলে জানিয়েছিল, নিউইয়র্কের বিশ্ব বাণিজ্য কেন্দ্রে হামলার ২০তম বার্ষিকীর দিনে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর তারা আফগানিস্তান থেকে ১০ হাজার বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহার করে নেবে।

Related posts

এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে কেউ সাহস না পায়: প্রধানমন্ত্রী

razzak

রাশিয়ায় বিবিসি-ডয়চে ভেলের ওয়েবসাইট বন্ধ

razzak

ফ্লোরিডার পানিতে বিপজ্জনক মাত্রায় রাসায়নিক পদার্থ মেশানোর চেষ্টা হ্যাকারের

Mims 24 : Powered by information

Leave a Comment

Translate »