অক্টোবর ৫, ২০২২
MIMS 24
এই মাত্র জাতীয় ব্রেকিং

যমুনার চরে বন্যায় ভাসছে মানুষ

মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার যমুনার দুর্গম চরাঞ্চলে গত দুই সাপ্তাহ ধরে অন্তত ২০ হাজার মানুষ বন্যার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বসতঘরে পানি প্রবেশ করায় শিশু ও গবাধিপশু নিয়ে বিপাকে পড়েছে শত শত পরিবার। অনেকেই বাড়ি ছেড়ে আশ্রয় কেন্দ্র ও আত্মীয়-স্বজন বাড়িতে আশ্রয় নিচ্ছেন।

এদিকে, পানিবন্দি মানুষদের কেউ খোঁজ-খবর নিচ্ছে না বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। এলাকায় শুষ্ক খাবার, বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে বলেও জানান তারা।

জানা গেছে, মানিকগঞ্জের পদ্মা-যমুনার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। গত কয়েক দিন ধরে এসব নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে জেলার সার্বিক বন্যার পরিস্থিতি আরো অবনতি হয়েছে। ইতিমধ্যে জেলার সাতটি উপজেলার মধ্যে শিবালয়, ঘিওর, দৌলতপুর, হরিরামপুর উপজেলার নিম্নাঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পরেছে।

আজ রবিবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় আরিচার যমুনা পয়েন্টে পাঁচ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে এ নদীর পানি বিপৎসীমার ৪৩ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ ছাড়া জেলার অভ্যন্তরীণ নদী কালিগঙ্গা, ধলেশ্বরী ও ইছামতি নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

আলোকদিয়া চরের বাবুল হাওলাদার বলেন, ‘গত দুই সাপ্তাহ যাবৎ আমরা বন্যার পানিতে ভাসতেছি। আমাদের খোঁজ নিতে কেউ আসেনি। মাঠে কাজ না থাকায় এখন দু বেলা পরিবারের সবার মুখে খাবার তুলে দেওয়াই কষ্ট হয়ে পরেছে।’

তেওতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের বলেন, ‘এ চরাঞ্চরের বন্যার্তদের বিষয়ে ইতিমধ্যে ঊর্ধতনদের অবগত করেছি। আশা করি, খুব দ্রুত সরকারিভাবে ত্রাণ বিতরণ করা হবে।’

মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ লতিফ বলেন, ইতিমধ্যে নদী ভাঙন কবলিতদের সহায়তা করা হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে প্রত্যেক উপজেলায় ৫০ হাজার করে দুই ফাণ্ড থেকে এক লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বন্যার্তদের জন্য। এ ছাড়া দুই শত প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রীও দেওয়া হয়েছে। আকস্মিক বন্যার কারণে ত্রাণ পৌঁছতে একটু সময় লাগছে।

Related posts

সাংবাদিকরা আমাদের উন্নয়ন সহযোগী: তথ্যমন্ত্রী

razzak

রাশিয়ার স্বর্ণ আমদানি নিষিদ্ধ করছে যুক্তরাষ্ট্র-ব্রিটেন-কানাডা

razzak

করোনাতঙ্কে লন্ডনের জি-৭ সম্মেলন

Irani Biswash

Leave a Comment

Translate »