অক্টোবর ৫, ২০২২
MIMS 24
অর্থনীতি এই মাত্র পাওয়া বাংলাদেশ

কাজে ফেরেনি ১৫ ভাগ শ্রমিক, সংকটে পোশাক খাত

করোনাকালে গ্রামে ফিরে যাওয়া শ্রমিকদের বড় একটি অংশ কাজে ফিরে না আসায় শ্রমিক সংকটে পড়েছে দেশের তৈরি পোশাক খাত। বারবার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়েও কাঙ্ক্ষিত শ্রমিক পাচ্ছে না কারখানাগুলো।

এতে বিদেশ থেকে পর্যাপ্ত কাজের অর্ডার এলেও অন্তত ১৫ শতাংশ কম শ্রমিক দিয়ে কাজ চালাতে হচ্ছে বলে দাবি কারখানা মালিকদের।

চলতি অর্থ বছরে প্রায় ৩৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছে দেশের ১৬শ গার্মেন্টস কারখানা। ইতোমধ্যে ফিরতে শুরু করেছে করোনা স্থবিরতায় আটকে যাওয়া বিদেশি অর্ডারও। কিন্তু কাজের গতি বাড়াতে গিয়ে বিপত্তি শুরু হয়েছে শ্রমিক সংকট নিয়ে।

বিজিএমইএ’র প্রথম সহ সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, করোনাকালে যেসব শ্রমিক গ্রামে চলে গেছেন তাদের মধ্যে ১০ থেকে ১৫ শতাংশই কাজে ফেরেননি। এতে করে কারখানাগুলো পূর্ণ উৎপাদন করতে পারছে না।

ফিনিশিং-কাটিং এবং কোয়ালিটি বিভাগ কোনো রকম জোড়াতালি দিয়ে চললেও সুইং বিভাগের অপারেটর এবং হেলপার সংকট মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। অথচ গার্মেন্টেসে এ বিভাগকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হিসাবে ধরা হয়।

বর্তমানে গার্মেন্টস কারখানাগুলোতে অত্যাধুনিক মেশিন ব্যবহার করায় শ্রমিকদের সে অণুযায়ী কর্মক্ষম করে তুলতে অন্তত ৬ মাসের বেশি প্রশিক্ষণের প্রয়োজন।

গার্মেন্টস মালিকদের দাবি, করোনা লকডাউনে যেসব শ্রমিক বাড়ি ফিরে গিয়েছিল, তাদের বেশিরভাগই কাজে ফিরে আসেনি। তাতে সংকট আরও বাড়ছে।

বাংলাদেশের গার্মেন্টস কারখানাগুলোতে ৪০ লাখের বেশি শ্রমিক কর্মরত রয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রামে ৩০৮টি কারখানায় শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ৫ লাখ।

Related posts

স্বদেশি বোনকে রক্ষায় ইউক্রেনে যুদ্ধ সম্মুখে বাংলাদেশি তরুণ

razzak

মূলধন বাড়াতে বন্ড ছাড়ছে দুই ব্যাংক

razzak

‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ অবলম্বনে নির্মিত চলচ্চিত্রের পোস্টার উদ্বোধন

Irani Biswash

Leave a Comment

Translate »