ফেব্রুয়ারী ২, ২০২৩
MIMS 24
অপরাধ আইন ও বিচার আন্তর্জাতিক এই মাত্র পাওয়া

যুক্তরাষ্ট্রে দুই পুলিশকে গুলি করে হত্যা

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলেসে অস্ত্রধারীদের গুলিতে দুই পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) শহরটিতে একটি ছুরিকাঘাতের ঘটনা তদন্তে এবং সন্দেহভাজন হামলাকারীকে ধরতে এক মোটেলে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানের একপর্যায়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে ওই হামলাকারী। এ সময় দুইপক্ষের গোলাগুলিতে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলেই বন্দুকধারীরও মৃত্যু হয় বলে জানায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। দুই পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনায় গভীর শোক জানিয়েছে দেশটির পুলিশ বিভাগ।

এল মন্তের পুলিশ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সিয়েস্তা ইন নামের ওই মোটেলে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশের ওপর গুলি চালানো হয়। তারা এক বিবৃতিতে জানায়, রাতের এ গুলির ঘটনায় এল মন্তে শহর গভীরভাবে শোকাহত। এ ঘটনায় আমরা আমাদের দুজন পুলিশ কর্মকর্তাকে হারিয়েছি।

এমন পরিস্থিতিতে বাইডেন প্রশাসনের ওপর চাপ বাড়িয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে যুক্তরাষ্টের জনগণ। বিক্ষোভের মুখে পড়ে বন্দুক কেনার আইন বদল করা নিয়ে আলোচনায় বসেছে মার্কিন সংসদ।
জানা যায়, বন্দুক কেনার আইন বদল করতে নতুন নির্দেশিকা জারি করা হবে। ২১ বছরের কম বয়সীদের বন্দুক কেনায় কড়াকড়ি করা হবে। এ ছাড়াও নাগরিকদের মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দেবে সরকার। তবে এ পদক্ষেপ খুবই নগণ্য বলে দাবি করেছেন নাগরিকদের একাংশ।

যুক্তরাষ্ট্রে কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না বন্দুক হামলা। প্রায় প্রতিদিনই গুলিতে কোনো না কোনো স্থানে প্রাণ ঝরছে। মহামারি রূপ ধারণ করা বন্দুক হামলা ঠেকাতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় সরকার। এবার স্কুলের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের হাতে বন্দুক তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওহাইয়ো সরকার। নতুন আইনে ২৪ ঘণ্টার বেশি প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ শেষে স্কুল সংশ্লিষ্টরা অস্ত্র বহন করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন ওহাইয়োর গভর্নর। নিরাপত্তা ইস্যুতে প্রশিক্ষণের জন্য নতুন করে ২৮ জন কর্মী নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া এরইমধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য ও অন্যান্য সেবার জন্য ১২০ কোটি ডলারের তহবিল গঠনের কথা জানিয়েছে সরকার।

এ ছাড়া আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন সংস্কারে তোড়জোড় শুরু করেছেন মার্কিন আইনপ্রণেতারাও। রোববার আগ্নেয়াস্ত্র নিরাপত্তা সংক্রান্ত সম্ভাব্য আইনের বিষয়ে একমত হওয়ার পর এটি দ্রুত বাস্তবায়নের অঙ্গীকার করেন মার্কিন সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা চাক শুমার।

মার্কিন সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা চাক শুমার বলেন, প্রথমবারের মতো সিনেট যে আইনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার মধ্যদিয়ে জীবন বাঁচানো সম্ভব হবে, বন্দুক সহিংসতা কমানো যাবে এবং আমরা আমাদের জনগণকে নিয়াপত্তা দিতে সক্ষম হব। আমরা কোনো ভুল করতে চাই না। আইনটি পাসের আগে আমাদের অনেক কাজ এখনো বাকি। তবে সোমবারের ঘোষণাটি একটি ইতিবাচক বিষয় এবং সঠিক পদক্ষেপ।

সিনেটে আগ্নেয়াস্ত্র আইন সংস্কারের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে হোয়াইট হাউসও।

সূত্র: ওয়াশিংটন পোস্ট

Related posts

ভারতকে ফুটবলে নিষিদ্ধ করল ফিফা

Mims 24 : Powered by information

বিচ্ছেদের পর প্রথম মুখোমুখি মেলিন্ডা-বিল

Irani Biswash

অস্ট্রেলিয়ায় বুশফায়ার নিয়ন্ত্রণের বাইরে : ৮০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য জুড়ে আগুন

Mims 24 : Powered by information

Leave a Comment

Translate »