ডিসেম্বর ৭, ২০২২
MIMS 24
আন্তর্জাতিক এই মাত্র এই মাত্র পাওয়া জাতীয় জীবনধারা প্রবাস কথা প্রিয় প্রবাসী ব্রেকিং স্বাস্থ্য

“আমাকে দৃশ্যমান হতে দাও” – প্রতিপাদ্যে আন্তর্জাতিক সম্মেলন

ডাঃ মুশতারী মিমি

“আমাকে দৃশ্যমান হতে দাও” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কানাডার টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে মা ও শিশু স্বাস্হ্য তথ্য বইয়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলন ।

গত ২৪ ও ২৫ আগষ্ঠ ২০২২ কানাডার টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ে মা ও শিশু স্বাস্থ্যতথ্য বইয়ের ওপর ১৩ তম আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ, কানাডা প্রবাসী ড. সাফি ভূইয়া। তিনি বর্তমানে ইউনিভার্সিটি অব টরোন্টোতে ক্লিনিকাল পাবলিক হেলথে বিভাগে অধ্যাপনা করছেন। মা ও শিশু স্বাস্থ্যবই নিয়ে কাজ করছেন বিশ বছরেরও বেশি সময় ধরে।

সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বিশ্বব্যাপী মা ও শিশু স্বাস্থ্যতথ্য বইকে ছড়িয়ে দেয়ার কর্ণধার ওসাকা ইউনিভার্সিটি , জাপানের প্রাক্তন অধ্যাপক এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্য তথ্যবইয়ের আন্তর্জাতিক কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. ইয়াসূদী নাকামুরা। অনুষ্ঠানে জাপানের ক্রাউন প্রিন্সেস আকিসিনো, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা, ইউএনএফপিএ, জাইকাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার নেতৃস্থানীয় এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মা ও শিশু স্বাস্থ্য নিয়ে নিরলসভাবে কাজ করে যাওয়া গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ মা ও শিশু স্বাস্থ্যতথ্য বইয়ের উপযোগিতা সম্পর্কে আলোকপাত করেন।

জাপানের প্রিন্সেস আকিসিনো বলেন – মা ও শিশু স্বাস্থ্য বইটি গর্ভবতী মা, নবজাতক শিশু ও তাদের পরিবারের জন্য একটি পরিপূর্ণ নির্দেশনা হিসেবে কাজ করবে যা একটি দেশের সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখতে পারে।

টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের ডালা লানা স্কুল অফ পাবলিক হেলথের ডিন অধ্যাপক অ্যাডালস্টেইন (স্টেইনি) মন্তব্য করেন সমাজের অবহেলিত এবং অসহায় মা ও তাদের পরিবারের জন্য বইটি হতে পারে প্রথম স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক নির্দেশনা এবং শিশুর যত্নের একটি গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি, টেদ্রোস গ্যাব্রিসাসের স্পেশাল এডভাইসার ড. পিটার সিংগার  হ্যান্ডবুকটি প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা নির্দেশক হিসেবে কাজ করে মাতৃ ও শিশু মৃত্যুহার কমিয়ে টেকসই উন্নয়নের লক্ষমাত্রা (SDG) অর্জন করতে  সাহায্য করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউনিভার্সাল হেলথ কভারেজের এসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর জেনারেল ড. নাওকো ইয়ামামোতো, ইউএনএইচএফপিএ কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ড. সাথিয়া ডোরাইসোয়ামি, জাইকা রিপ্রেজেনটেটিভ ড. জুন সাকুমা সহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ।

সম্মেলনে মা ও শিশু স্বাস্থ্য তথ্যবইটি বিশ্বব্যাপী প্রচলন করার মাধ্যমে মা ও শিশু মৃত্যহার কমিয়ে তাদের জন্য সুস্থ ও ঝুঁকিমুক্ত  জীবন নিশ্চিত করার নিমিত্তে ঘোষণা করা হয় টরন্টো ডিক্লারেশন যা আগামী দিনগুলোতে বইটির ব্যবহার বাড়াতে সুদূরপ্রসারী ভূমিকা রাখবে আশা করা যায়।

মা ও শিশু স্বাস্থ্য তথ্য বইটি বর্তমানে বিশ্বের  ৫২ টি দেশে বিভিন্ন পরিসরে মা ও তাদের পরিবার ব্যবহার করছে এবং এর সুফল ভোগ করছে। দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হওয়া এই ১৩ তম আন্তর্জাতিক সম্মেলনে  ৬১ দেশের  প্রায় ১০৪৯ জন অংশগ্রহনকারী জুম কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশগ্রহন করেন যা মা ও শিশু স্বাস্থ্যতথ্য বইয়ের জন্য একটি মাইলফলক। এ সম্মেলনে আগামী ১৪ তম সম্মেলনটি ২০২৪ সালে ফিলিপাইনে অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষনা করা হয়।

ড. সাফি ভূইয়া ২০০২ সালে জাপান সরকারের অর্থায়নে এবং বাংলাদেশ সরকারের সহায়তায় বাংলাদেশে মা ও শিশু স্বাস্থ্য তথ্যবই প্রচলন করেন। সর্বজনীনভাবে  ব্যবহারের সুযোগ পেলে এই বইটি হতে পারে মা ও শিশুর জীবন রক্ষাকারী সময়োপোযোগী হাতিয়ার ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে একটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক।

 

ডাঃ মুশতারী মিমি

এমবিবিএস, এমপিএইচ (ইপিডেমিওলজি) শিক্ষার্থী, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি এবং বাংলাদেশ প্রতিনিধি, আন্তর্জাতিক এমসিএইচ হ্যান্ডবুক কনফারেন্স কমিটি।

 

 

Related posts

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

razzak

পর্তুগালের ৪৫টি শহরে সান্ধ্য কারফিউ জারি

Irani Biswash

বাংলাদেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়িয়েছে: বিশ্বব্যাংক

razzak

Leave a Comment

Translate »