ফেব্রুয়ারী ২, ২০২৩
MIMS 24
আন্তর্জাতিক এই মাত্র এই মাত্র পাওয়া জাতীয় জীবনধারা বাংলাদেশ ব্রেকিং ব্রেকিং নিউজ স্বাস্থ্য

আজ ‘বিশ্ব নিউমোনিয়া দিবস’: উচ্চ ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

বিশ্ব নিউমোনিয়া দিবস আজ। শিশু ও বয়স্কদের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সংক্রামক ঘাতকের নাম নিউমোনিয়া। নিরাময়যোগ্য হলেও বিশ্বে প্রতি ১৩ সেকেন্ডে একজন নিউমোনিয়ায় মারা যায়। আর বাংলাদেশে প্রতিবছর নিউমোনিয়ায় মারা যায় ২৫ হাজার মানুষ।

নিউমোনিয়া হচ্ছে শ্বাসযন্ত্রের এক ধরনের তীব্র সংক্রমণ যা ফুসফুসকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। ফুসফুস অ্যালভিওলি নামক অসংখ্য ছোট ছোট থলি দিয়ে তৈরি একজন সুস্থ ব্যক্তি যখন শ্বাস নেয় তখন অ্যালাভিওলি বাতাসে পূর্ণ হয়। যখন কারো নিউমোনিয়া হয়, তখন অ্যালভিওলিগুলো পুঁজ এবং তরল দিয়ে পূর্ণ হয়, যা শ্বাস গ্রহণকে কষ্টকর করে এবং রোগীর অক্সিজেন গ্রহণকে সীমিত করে তোলে।

উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ নিউমোনিয়ার উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, নিউমোনিয়ায় ঝুঁকিতে থাকা দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম। উন্নয়নশীল দেশে ৫৪ শতাংশ নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত শিশুকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসা হলেও বাংলাদেশে এই সংখ্যা ৩৭ শতাংশ। বর্তমানে বাংলাদেশে প্রতি বছর গড়ে প্রায় এক লাখ মানুষ নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়, যার মধ্যে পাঁচ বছর বয়সের কম বয়সী প্রায় ২০ হাজার শিশুর মৃত্যু ঘটে।

এমন প্রেক্ষাপটে নিউমোনিয়া সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়াতে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও আজ (১২ নভেম্বর) পালিত হচ্ছে বিশ্ব নিউমোনিয়া দিবস-২০২২। এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে—‘নিউমোনিয়া এফেক্টস এভরিওয়ান’ অর্থাৎ ‘নিউমোনিয়া সবাইকে আক্রান্ত করে।’

বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশে নিউমোনিয়া চিকিৎসায় সম্প্রসারিত টিকাসহ নানা কর্মসূচি থাকলেও বায়ুদূষণ, অসচেতনতা, নিরাপদ পানির সংকট ও অপুষ্টি এবং সঠিক পরিকল্পনার অভাবে ফুফফুস সংক্রমণজনিত রোগ নিউমোনিয়ার ঝুঁকি বাড়ছে। বিশেষ করে ঘনবসতিপূর্ণ বস্তি এলাকার ঘরগুলোতে ভেন্টিলেশন সুবিধা কম থাকায় হাঁচি-কাশির মাধ্যমে নিউমোনিয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

জনস্বাস্থ্যবিদরা জানান, ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস ও টিবির জীবাণুর মাধ্যমে নিউমোনিয়া ছড়ায়। সারাবিশ্বে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুর নিউমোনিয়ায় আক্রান্তের হার বেশি। সব বয়সী এ রোগে আক্রান্ত হতে পারে। বয়স্করাও ঝুঁকিপূর্ণ।

নিউমোনিয়া প্রতিরোধে টিকাকরণ কিংবা ভ্যাক্সিন নেয়া খুবই জরুরি। বিশেষ করে পাঁচ বছরের নিচে বা ৬৫ বছরের ওপরে বয়সিদের অথবা যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাদের নিউমোনিয়া প্রতিরোধে ভ্যাক্সিন নেওয়া অত্যাবশ্যক। তবে বেশকিছু ভাইরাল নিউমোনিয়া রয়েছে যার প্রতিরোধে এখনও কোনো টিকা আবিষ্কার হয়নি।

তবে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হলে অবশ্যই ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করতে হবে। নিউমোনিয়া প্রতিরোধে সাধারণ কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা জরুরি। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে –

  • সবসময় ধুলাবালি থেকে দূরে থাকা
  • পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা
  • বাইরে থেকে এসে হাত-মুখ সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলা
  • খাবার খাওয়ার আগে অবশ্যই হাত ধোয়া
  • অসুস্থদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা
  • মাস্কের ব্যবহার এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা

Related posts

স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কাদের বেশি

razzak

পাঁচ হাজার রান ক্লাবের দ্বার প্রান্তে তামিম-মুশফিক

razzak

নারী এশিয়া কাপের জন্য বাংলাদেশ দল ঘোষণা

Mims 24 : Powered by information

Leave a Comment

Translate »