ফেব্রুয়ারী ২, ২০২৩
MIMS 24
আন্তর্জাতিক এই মাত্র এই মাত্র পাওয়া ব্রেকিং ব্রেকিং নিউজ রাজনীতি

নিউজিল্যান্ডের নতুন প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন ক্রিস হিপকিনস

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে জেসিন্ডা আরডার্নের পদত্যাগের ঘোষণায় তার স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন ৪৪ বছর বয়সী ক্রিস হিপকিনস। বর্তমানে তিনি দেশটির পুলিশ, শিক্ষা ও জনসেবা মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ক্ষমতাসীন লেবার পার্টির নেতা নির্বাচনে ক্রিস হিপকিনস হলেন দল মনোনীত একমাত্র প্রার্থী। ফলে তিনিই জেসিন্ডা আরডার্নের উত্তরসূরি হতে যাচ্ছেন। যদিও এ জন্য রোববার (২২ জানুয়ারী) তাঁকে পার্লামেন্টে লেবার পার্টির আনুষ্ঠানিক সমর্থন পেতে হবে।

ক্রিস হিপকিনস যেহেতু দল মনোনীত একমাত্র প্রার্থী সেহেতু তিনি সহজেই লেবার পার্টির সমর্থন পেয়ে যাবেন। তবে দলের সমর্থন পাওয়ার পরও প্রধানমন্ত্রী হতে আরও কিছু আনুষ্ঠানিকতা বাকি থাকবে ক্রিসের জন্য।

আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি জেসিন্ডা আরডার্ন আনুষ্ঠানিকভাবে নিউজিল্যান্ডের গভর্নর জেনারেলের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেবেন। এরপর গভর্নর জেনারেল রাজা তৃতীয় চার্লসের পক্ষে ক্রিসকে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেবেন।

লেবার পার্টি থেকে ক্রিস হিপকিনস ২০০৮ সালে প্রথম পার্লামেন্ট সদস্য (এমপি) নির্বাচিত হন। ২০২০ সালের নভেম্বরে তাঁকে কোভিড-১৯ মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। করোনা মোকাবিলায় তাঁর নেওয়া পদক্ষেপ দারুণভাবে প্রশংসিত হয়। বলা হয়ে থাকে, তার নেওয়া পদক্ষেপের কারণে দেশটিতে ২০২১ সালের প্রথমার্ধ পর্যন্ত তেমনভাবে করোনা আক্রান্ত হয়নি।

তবে করোনার ডেলটা ধরনের ঢেউ ঠেকাতে কঠোর বিধিনিষেধের কারণে ক্রিস হিপকিনস সমালোচিত হন। পরে তিনি স্বীকার করেন, আরও আগেই কোয়ারেন্টিনের মতো বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া উচিত ছিল। সমালোচনার মধ্যেই দক্ষতা দেখিয়ে গত বছরের মাঝামাঝিতে দেশটির পুলিশ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এ ছাড়া তিনি শিক্ষা, জনসেবা মন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব সামলেছেন।

আইনপ্রণেতা হিসেবে পার্লামেন্টে আসার আগে ৪৪ বছর বয়সী ক্রিস হিপকিনস শিক্ষামন্ত্রীর উপদেষ্টা ও দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী হেলেন ক্লার্কের কার্যালয়েও কাজ করেছেন।

হঠাৎ করে গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন জেসিন্ডা আরডার্ন। আগামী ১৪ অক্টোবর দেশটির সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে তিনি আর প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হচ্ছেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়লেও জেসিন্ডা নির্বাচন পর্যন্ত পার্লামেন্টের সদস্য থাকবেন।

২০১৭ সালে প্রথম নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হন জেসিন্ডাআরডার্ন। তখন তাঁর বয়স ছিল ৩৭ বছর। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিউজিল্যান্ডের দায়িত্ব নেন। তিনি বিশ্বে দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী যিনি ক্ষমতায় থাকাকালে মা হয়েছেন। এ রেকর্ডে প্রথমস্থানে রয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো।

Related posts

করোনা আপডেট, মৃত্যু ৩৩

Irani Biswash

আজ করোনা টিকা নিবেন রাষ্ট্রপতি

Mims 24 : Powered by information

পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনি শিশুকে গুলি করে হত্যা

razzak

Leave a Comment

Translate »