আন্তর্জাতিক এই মাত্র এই মাত্র পাওয়া জনদুর্ভোগ জীবনধারা ব্রেকিং ব্রেকিং নিউজ যুক্তরাষ্ট্র

শৈত্যপ্রবাহে নাকাল যুক্তরাষ্ট্র-কানাডা: মাইনাস ৭৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার রেকর্ড যুক্তরাষ্ট্রে

ভয়াবহ ঠান্ডা ও তীব্র শৈত্যপ্রবাহে কাঁপছে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা। যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও কানাডার প্রায় ১০ কোটি মানুষের জীবন থমকে গেছে রেকর্ড এ ঠান্ডায়। এ দুর্যোগে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত আমেরিকার নিউ হ্যাম্পশায়ার অঙ্গরাজ্য। সেখানে জারি রয়েছে জরুরী অবস্থা। বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য নিউ হ্যাম্পশায়ারের মাউন্ট ওয়াশিংটনের উপরে তীব্র শীতল বাতাসে রাতারাতি তাপমাত্রা মাইনাস ৭৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে (মাইনাস ১০৮ ডিগ্রি ফারেনহাইট) পৌঁছেছে। যুক্তরাষ্ট্রে এর আগে আর কোথাও এমন মারাত্মক ঠাণ্ডা অনুভূত হয়নি।

মেইন স্টেটের গ্রে শহরে পরিষেবার অফিস এক টুইটে বলেছে, এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সর্বনিম্ন বায়ু-শীতল তাপমাত্রার জন্য একটি নতুন মার্কিন রেকর্ড তৈরি করেছে। সিএনএন জানিয়েছে, এটি আলাস্কায় মাইনাস ৭৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আগের রেকর্ডটি ভেঙেছে।

একটি স্থানীয় আবহাওয়া চ্যানেল জানিয়েছে, মাউন্ট ওয়াশিংটনে আগের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৭৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সেখানে ২০০৪ সালে এই তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। প্রায় ৬,৩০০ ফুট উচ্চতার মাউন্ট ওয়াশিংটন হল উত্তর-পূর্ব মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ শিখর এবং এটি বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ আবহাওয়ার জন্য পরিচিত।

মার্কিন জাতীয় আবহাওয়া পরিষেবা (এনডব্লিউএস) জানিয়েছে, এসব অঞ্চলে মাইনাস ৪৩ সেলসিয়াস তাপমাত্রা এবং একই সাথে ঘণ্টায় ১১০ মাইল বেগে বাতাস বইছে। এতে এই সর্বনিন্ম তাপমাত্রার রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। তাপমাত্রা কমতে থাকায় ১০ মিনেটেরও কম সময়ের মধ্যে অনাবৃত ত্বকে ফ্রস্টবাইট হতে পারে বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক রাজ্যের বেশিরভাগ এবং নিউ ইংল্যান্ডের ছয়টি রাজ্যে শীতল বায়ুর সতর্কতা ঘোষণা করা হয়েছে। এনডব্লিউএস সতর্ক করেছে, প্রচণ্ড ঠান্ডার কারণে বিপজ্জনক পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে। এমনকি পাঁচ মিনিটের মধ্যে তুষারপাত উন্মুক্ত ত্বকের ক্ষতি করতে পারে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ১৯৮২ এবং ১৯৯৮ সালে অনুরূপ প্রাদুর্ভাব ঘটেছিল, তবে এই ধরনের ভয়াবহ শীতলতা দেখা যায়নি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ইয়াহু নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্টের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও কানাডার প্রায় ১০ কোটি মানুষ এই ভয়াবহ ঠাণ্ডায় কাঁপছে।

এনডব্লিউএস আরো জানায়, কানাডার রাজধানী অটোয়াতে তুষারপাত এবং বাতাসের কারণে দৃশ্যমানতা শূন্যের কাছাকাছি নেমে এসেছে। পাশাপাশি মন্ট্রিলে শুক্রবার তাপমাত্রা মাইনাস ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মতো অনুভূত হয়েছে। শক্তিশালী ও ঠান্ডা দমকা হাওয়ার কারণে কুইবেকের উত্তরাঞ্চলে তাপমাত্রা মাইনাস ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

Related posts

করোনা আপডেট, মৃত্যু ৭৮

Irani Biswash

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে জাতিসংঘ মহাসচিবকে আমন্ত্রণ

Mims 24 : Powered by information

প্রবাসীদের জন্য ‘ই-লকার‘ চালু করবে মালয়েশিয়া

razzak

Leave a Comment

Translate »