আন্তর্জাতিক এই মাত্র এই মাত্র পাওয়া খেলাধুলা জাতীয় বাংলাদেশ ব্রেকিং ব্রেকিং নিউজ

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জিতল বাংলাদেশ

প্রথমে টেস্ট। এরপর ওয়ানডে। এবার নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতেও জয়ের দেখা পেলো বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডে এখন পর্যন্ত টানা ৯টি ম্যাচ হেরে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টিতে জয়ের দেখা পায় বাংলাদেশ। ২৭ ডিসেম্বর (বুধবার) টাইগাররা ৫ উইকেটের জয়ে ইতিহাস গড়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করেছে।

২৭ ডিসেম্বর নেপিয়ারে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রান তুলে নিউজিল্যান্ড। জবাবে খেলতে নেমে ১৮ ওভার ৪ বলে ৫ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

এদিন নিউজিল্যান্ডের রানটাকে ১৩৪-এ থামিয়ে অর্ধেক কাজ করে দেন বাংলাদেশের শরীফুল ইসলাম-মেহেদী হাসানরা। কন্ডিশন যেমনই হোক, ২০ ওভারের খেলায় যা হেসেখেলে টপকানো যায়। তবে  বাংলাদেশের ক্ষেত্রে তা হয়নি। লিটন দাস শুরুতে নেমে ধরে খেললেও ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই রনি তালুকদারের উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

তিনে নেমে অধিনায়ক শান্ত পুল করে পান বাউন্ডারি। তার ব্যাট থেকে বাউন্ডারি আসে আরও তিনটি। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে জিমি নিশামের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিড অফে ক্যাচ তোলেন শান্ত। তাঁর আগে ১৪ বলে ৪টি বাউন্ডারিতে ১৯ রান করেন তিনি। তবে দুজনের সৌজন্যে পাওয়ারপ্লেতে ৪২ রান পেয়ে যায় বাংলাদেশ।

চারে নেমে ইশ সোধিকে সুইপে ছক্কা, রিভার্স সুইপে চারে শুরু করেন সৌম্য সরকার। বেন সিয়ার্সের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ২ চার ও ১ ছক্কায় ১৫ বলে ২২ রান যোগ করেন তিনি। এরপর তাওহিদ হৃদয়কে নিয়ে লিটন আরও ২৯ রান যোগ করলেও তা দীর্ঘ হয়নি। স্যান্টনারের করা ১৪তম ওভারে ক্রিজ ছেড়ে খেলে কাভারে ক্যাচ আউট হন তাওহিদ। ১৮ বল খেলে ১৯ রান করেন তিনি।

পরের ওভারে যখন আফিফ হোসেন আউট হয়, বাংলাদেশ তখন কিছুটা শঙ্কায় পড়ে যায়। শেষ ৩ ওভারে বাংলাদেশের প্রয়োজন পড়ে ২৪ রানের। তখনই চাপ দূর করে দেওয়া দুটি শট খেলেন লিটন। সিয়ার্সকে একটি বাউন্ডারি মারার পরের বলে উড়িয়ে মারেন তিনি। সীমানায় ক্যাচ নেন ইশ সোধি। কিন্তু ভারসাম্য রাখতে না পেরে তার পা স্পর্শ করে সীমানা। বাংলাদেশের জয় তাতেই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায়।

জয়সূচক রানটা আসে মেহেদীর ব্যাট থেকে। মিলনের ১৯তম ওভারে মেহেদীর একটি ছয় ও একটি চারে ১৮.৪ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। ১৬ বলে ১৯ রানে অপরাজিত থাকেন মেহেদী, লিটন ৩৬ বলে ২টি চার ও ১টি ছক্কায় করেন ৪২ রান। জয়ের রান তোলা মেহেদীই হন ম্যাচসেরা।

এর আগে টস জিতে বোলিং নিয়ে দলের দারুণ শুরুর নায়কও মেহেদী। প্রথম ওভারেই উইকেট এনে দেন তিনি। দ্বিতীয় ওভারে জোড়া শিকার ধরেন শরিফুল। ১ রানেই নিউজিল্যান্ডের টপ তিন ব্যাটারকে তুলে নেয় বাংলাদেশ।

২০ রানে ৪ আর ৫০ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা কিউই ইনিংস টেনেছেন জিমি নিশাম। অধিনায়ক মিচেল স্যান্টনারকে নিয়ে ৩১ বলে ৪১ রানের জুটিতে দলকে লড়াইয়ের জায়গায় রাখেন তিনি। ২৯ বলে ৪৮ করে ১৭তম ওভারে তিনি আউট হলে ১৩৪ রান করতে সক্ষম হয় স্বাগতিকরা।

বোলারদের এই চমৎকার বোলিংই এনে দেয় টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের ‘প্রথম’ জয়। সব মিলিয়ে এর আগে পর্যন্ত ১৭টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড। এর মধ্যে বাংলাদেশের জয় পায় ৩টিতে এবং নিউজিল্যান্ডের জয় ১৪ ম্যাচে।

Related posts

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি হাসান শাহরিয়ারের ইন্তেকাল

Irani Biswash

ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে

Irani Biswash

ভারতের সঙ্গে সব ধরনের আমদানি-রপ্তানি বন্ধ করলো তালেবান

razzak

Leave a Comment

Translate »